নিজস্ব প্রতিবেদক

২২ জুন, ২০২৪ ১৩:১৪

সিলেট-সুনামগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি, কমেনি দুর্ভোগ

বৃষ্টি কমায় উন্নতির পথে সিলেট ও সুনামগঞ্জের বন্যা পরিস্থিতি। যদিও এখনো সুরমানদীর পাঁচ পয়েন্টে পানি বিপৎসীমার ওপর দিয়েই প্রবাহিত হচ্ছে। আগামী তিন দিনের মধ্যে এই অঞ্চলের বন্যা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে পারে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড।

এদিকে পরিবার নিয়ে চরম বিপাকে পড়েছেন আশ্রয়কেন্দ্রের মানুষ। সিলেট শহরে সুরমা নদীর পানি কমে বর্তমানে বিপৎসীমার তিন সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে, অর্থাৎ ১০.৭৭ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। বিভিন্ন বাসা বাড়ি থেকে নামতে শুরু করেছে পানি। কিছু এলাকায় পানি কমে যাওয়ায় আশ্রয়কেন্দ্র থেকে অনেক পরিবার বাড়িতে চলে আসছেন।

তবে সিলেট শহর এলাকার ড্রেন, ছড়া,খাল পরিষ্কার না থাকা এবং এক ড্রেনের সাথে অন্য ড্রেনের সংযোগ না থাকায় পানি নামছে না। ড্রেনের ময়লা উপরে উঠে এসে সৃষ্টি হয়েছে দুর্গন্ধময় পরিবেশের। বিভিন্ন বাসা বাড়িতে জমে আছে ময়লা পানি।

পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) জানিয়েছে, ১২ ঘণ্টায় সিলেট পয়েন্টে পানি কমেছে ১২ সেন্টিমিটার। এছাড়া, গত ১২ ঘণ্টায় সারি, গোয়াইন, ডাউকির মতো সীমান্ত নদীগুলোর পানি কমেছে ১০ থেকে ১৫ সেন্টিমিটার। কমেছে কুশিয়ারা নদীর পানিও। তবে এখনও জেলার ৯ লাখেরও বেশি মানুষ পানিবন্দি। প্রায় ৪০০ আশ্রয়কেন্দ্রে ২৫ হাজার মানুষ মানবেতর জীবনযাপন করছে।

এদিকে সুনামগঞ্জেও বন্যা পরিস্থিতি উন্নতির দিকে। বৃহস্পতিবার থেকে বৃষ্টিপাত না হওয়ায় কমছে নদ-নদী ও হাওরের পানি। গেলো ২৪ ঘণ্টায় বিপৎসীমার নিচে নেমেছে সুরমার পানি। বর্তমানে ১০ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এতে শহরের বেশিরভাগ সড়ক ও ঘরবাড়ি থেকে নেমে গেছে বন্যার পানি। আশ্রয়কেন্দ্রে ছেড়ে নিজ ঘরে ফিরতে শুরু করেছে মানুষজন।

এই পরিস্থিতিতে পানিবন্দী মানুষ খাদ্য সংকটে পড়েছেন। এসব এলাকায় বিশুদ্ধ পানির অভাব দেখা দিয়েছে। তবে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পানিবন্দি মানুষদের সব ধরনের সহযোগিতা করা হচ্ছে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত