তাহিরপুর প্রতিনিধি

২৩ জুন, ২০২৪ ২৩:৫৭

রাসেলস ভাইপার ভেবে অজগরের দুটি বাচ্চাকে হত্যা

সুনামগঞ্জের দুটি উপজেলায় রাসেলস ভাইপার ভেবে দুটি অজগর সাপের বাচ্চা মেরে ফেলেছে এলাকাবাসী। পরে দায়িত্বশীল কর্রেপক্ষ মারা যাওয়া সাপগুলো রাসেলস ভাইপার নয় অজগর সাপ বলে নিশ্চিত করেছেন।

রবিবার(২৩ জুন) সকালে তাহিরপুর উপজেলার কয়েকটি স্থানে অজগর সাপের বাচ্চা ধরার ঘটনা ঘটে। একেই ঘটনা ঘটেছে জেলার বিশ্বম্ভরপুর উপজেলায় পলাশ ইউনিয়নের আলীপুর গ্রামে।

পরে অজগর সাপকেই রাসেলস ভাইপার বলে ফেইসবুকে ছবি দিয়ে প্রচার চালিয়ে জনমনে আতংক সৃষ্টি হয়।

খোঁজ জানা গেছে, তাহিরপুর উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের জাঙ্গালহাটি গ্রামে আরেকটি অজগর সাপ ধরে লোকজন। কিন্তু না চিনেই চীনা প্রজাতির পাইতন অজগর সাপের বাচ্চাকেই রাসেল ভাইপার বলে প্রচার করে মেরে ফেলা হয়।

একেই ঘটনা ঘটেছে পাশ্ববর্তী বিশম্ভরপুর উপজেলা পলাশ ইউনিয়নের আলীপুর গ্রামের জেলে মোঃ হুসাইন আহমেদ বাড়ির পাশে কারেন্টের জাল মাছ ধরার জন্য পেতে রাখে। সেখানে সকালে একটি অজগর সাপ ধরা পরে। কিন্তু না চিনে রাসেলস ভাইপার বলে প্রচার দেয় এবং মেরে ফেলে।

মেরে ফেলা সাপটি রাসেলস ভাইপার নয় বলে জানিয়েছেন বন বিভাগের বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার শক্তিয়ার খলা বিট অফিসার রতিন্দ্র কুমার।

তিনি আরও জানান, এটি মুলত মেঘালয় পাহাড় থেকে পাহাড়ি ঢলের পানিতে ভেষে আসা চীনা প্রজাতির একটি পাইতন অজগর সাপের বাচ্চা। সুনামগঞ্জ ও সিলেটে রাসেলস ভাইপার সাপ আসার সম্ভাবনাও নাই। আতংকিত হবার কিছু নেই তবে সবাই সর্তক থাকুন। কোনো অপরিচিত সাপ দেখলে বা ধরলে আমাদের কে জানাবেন।

তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সালমা পারভিন জানান,কেউ যেকোনো সাপ ধরলে সাপের জাত নিশ্চিত না হয়ে রাসেলস ভাইপার বলে প্রচার থেকে বিরত থাকার জন্য আহবান জানান।

বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মফিজুর রহমান জানান,অজগর সাপকেই রাসেলস ভাইপার মনে করে মেরে ফেলেছে এলাকাবাসী। রাসেলস ভাইপার আতংকেই এমটা হয়েছে। গুজবে কান দেয়া যাবে না,তবে সবাইকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে সতর্ক থাকতে হবে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত