COVID-19
CORONAVIRUS
OUTBREAK

Bangladesh

Worldwide

49

Confirmed Cases,
Bangladesh

05

Deaths in
Bangladesh

19

Total
Recovered

770,165

Worldwide
Cases

36,938

Deaths
Worldwide

160,243

Total
Recovered

Source : IEDCR

Source : worldometers.info

নিজস্ব প্রতিবেদক

১৭ ফেব্রুয়ারি , ২০২০ ০২:২০

জাতীয় অনেক বিষয়ে আমরা ঐক্যবদ্ধ হতে পারি না: মোফাজ্জল করিম

সাবেক রাষ্ট্রদূত, কবি মোফাজ্জল করিম বলেছেন, ভাষা আন্দোলন পরিপূর্ণতার দিকে যখন যাচ্ছিল তখন এর পেছনে একটি জেলার নাম খুবই প্রকট ভাবে শোনা যাচ্ছিল। সেই জেলার নাম সিলেট। বাংলা ভাষাকে রাষ্ট্রভাষা করার এই আন্দোলন ছিল মূলত বাংলাকে স্বীকৃতির জন্য। আমাদের এত অর্জনের সূচনা হয়েছিল ৫২ তেই।

তিনি আরও বলেন, দেশ এখন অনেক দিক থেকেই এগিয়ে গেছে কিন্তু জাতীয় অনেক বিষয়ে আমরা ঐক্যবদ্ধ হতে পরি না। দেশের উন্নয়নে আমাদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। তবে যারা স্বাধীনতার শত্রু তাদের ব্যাপারেও সজাগ থাকতে হবে।

সিলেট সিটি করপোরেশন ও সিলেটটুডে টোয়েন্টিফোর ডটকম'র ভাষাসৈনিক সম্মাননা অনুষ্ঠানে আলোচক হিসেবে বক্তব্যের সময় তিনি এসব কথা বলেন। রোববার সন্ধ্যায় নগরীর একটি হোটেলের বলরুমে এ অনুষ্ঠানে সিলেটের ৭ ভাষাসৈনিককে সম্মাননা জানানো হয়।

সন্ধ্যায় ওস্তাদ মধু খানের সেতার পরিবেশনার মধ্য দিয়ে শুরু হয় সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠান। এরপর আয়োজকদের পক্ষে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন সিলেটটুডে’র প্রধান সম্পাদক কবির য়াহমদ ও সিসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বিধায়ক রায় চৌধুরী। শুভেচ্ছা বক্তব্যের পর সম্মাননা স্মারকগ্রন্থ ‘শব্দগান রক্তমিতা’র মোড়ক উন্মোচন করেন অতিথিরা।

অনুষ্ঠানে আরেক আলোচক ছিলেন জাতীয় অধ্যাপক ড. জামিলুর রেজা চৌধুরী।

এ আয়োজনে আবুল মাল আবদুল মুহিত, সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুস সামাদ আজাদ (মরণোত্তর), সাবেক অর্থমন্ত্রী এম সাইফুর রহমান (মরণোত্তর), শিক্ষাবিদ ড. ছদরুদ্দিন আহমদ চৌধুরী (মরণোত্তর), অ্যাডভোকেট মনির উদ্দিন আহমদ (মরণোত্তর), কমরেড আসাদ্দর আলী (মরণোত্তর) ও ডা. মো. হারিছ উদ্দিন (মরণোত্তর)-কে এই অনুষ্ঠানে সম্মাননা প্রদান করা হয়।

সম্মাননাপ্রাপ্তদের মধ্যে আবুল মাল আবদুল মুহিত সশরীরে উপস্থিত থেকে সম্মাননা গ্রহণ করেন। মরণোত্তর সম্মাননাপ্রাপ্ত ভাষাসৈনিকদের পক্ষে তাদের পরিবারের সদস্যরা সম্মাননা গ্রহণ করেন। সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুস সামাদ আজাদের পক্ষে তার পুত্র আজিজুস সামাদ ডন, সাবেক অর্থমন্ত্রী এম সাইফুর রহমানের পরিবারের পক্ষে অ্যাডভোকেট মুজিবুর রহমান, শিক্ষাবিদ ড. ছদরুদ্দিন আহমদ চৌধুরীর পক্ষে তার মেয়ে অধ্যাপক ড. নাজিয়া চৌধুরী, অ্যাডভোকেট মনির উদ্দিন আহমদের পক্ষে আবু সালেহ মো. নাইম, কমরেড আসাদ্দর আলীর পক্ষে পরিবারের সদস্য নাফিজা খানম আশা এবং ডা. মো. হারিছ উদ্দিনের পক্ষে তার পুত্র ডা. সালেহ আহমদ আলমগীর সম্মাননা গ্রহণ করেন।

সবশেষে আয়োজকদের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানিয়ে বক্তব্য দেন সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

তিনি বলেন, ভাষা আন্দোলনে অংশ নেওয়া সিলেটের ৭জনকে আজ আমরা সম্মানিত করেছি। এ আয়োজন আমরা নিয়মিত করবো। আমরা '৭১ এ মুক্তিযুদ্ধ ও ৫২র ভাষা আন্দোলনে অংশ নেওয়াদের সম্মানিত করার এই প্রক্রিয়া ধারাবাহিক রাখবো।

এসময় মেয়র আরও বলেন, সিলেটে যার যার রাজনীতিক আদর্শ ভিন্ন হলেও সিলেটের প্রশ্নে আমরা সবাই এক এবং অভিন্ন।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত