নিজস্ব প্রতিবেদক

৩০ নভেম্বর, ২০২৩ ১৮:২০

প্রধানমন্ত্রীর সাথে দেখা করে স্বতন্ত্র প্রার্থী হলেন জয়া সেন

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সুনামগঞ্জ-২ আসনের (দিরাই-শাল্লা) স্বতন্ত্র প্রার্থী ড. জয়া সেনগুপ্তার বৈঠকের একটি ছবি বুধবার সকাল থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হতে দেখা যায়। আর এই ছবি নিয়ে উঠেছে নানা গুঞ্জন। মনোনয়ন বঞ্চিত প্রার্থী ড.জয়া সেনগুপ্তার সমর্থকদের সুরঞ্জিতের স্ত্রী ড. জয়া সেনগুপ্তাকে ভোটে লড়তে অনুমতি দিলেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা লিখে পোস্ট করতে দেখা যায়।
 
অবশেষে সেই ছবির বিষয়ে মুখ খুললেন সংসদ সদস্য ড.জয়া সেনগুপ্তা।
 
তিনি বলেন, “মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করেছি সাথে আরও কয়েকজন স্বতন্ত্র প্রার্থী ছিল। একপর্যায়ে প্রধানমন্ত্রী নিজেই বললেন,‘আপনাদের সঙ্গে আমার ছবি থাকলেই তো সবাই বুঝবে, আপনারা আওয়ামী লীগের বাইরের কেউ নন, আপনারা কেউ জাতির পিতার বাহিরে না। পরে উনার লোক দিয়েই তিনি এই ছবি তুলেন। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘প্রতিযোগিতামূলক নির্বাচন হতে হবে। নির্বাচন অবাধ ও নিরপেক্ষ হবে, আপনারা ভোটে থাকুন।”
 
তিনি বলেন, “শ্রদ্ধা জানাই প্রধানমন্ত্রীকে তিনি যদি আমাকে বার বার এখানে না পাঠাতেন আমি আপনাদের পাইতাম না, শ্রদ্ধা জানাই আপনাদের প্রয়াত নেতা সুরঞ্জিত সেনগুপ্তকে। আমার জীবনে আগে কখনও এতগুলো মানুষের ভালবাসা দেখিনাই। উনার কল্যাণেই আমি এতগুলো মানুষের ভালবাসা পেয়েছি। আপনারা এইটুকু বিশ্বাস রাখতে পারেন আমি পালিয়ে যাওয়ার মানুষ না। আমার কোন ডরভয় নাই। যদি ভয় পাইতাম তাহলে এখানে আসতাম না, নৌকা পাইনি কেন আসব।”
 
গত বুধবার (২৯ নভেম্বর) রাতে দিরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে এক সভায় তিনি এসব কথা বলেন।
 
প্রধানমন্ত্রী প্রসঙ্গে ড. জয়া সেন বলেন, “তিনি বলেছেন আমি শুনেছি এমনি গুজব ছড়ানো হচ্ছে নৌকার বাইরে কি ভাবে যায়, আমরাত নৌকার বাহিরে না,প্রধানমন্ত্রী বলেছেন নৌকাকে প্রতিযোগিতাপূর্ণ কর,আন্তর্জাতিকভাবে নৌকাকে আরও পুরস্কৃত কর,আরও প্রশংসিত কর। এজন্যই আমরা আপনাদের দিয়েছি। আপনারাত নৌকার বাহিরে না বরং নৌকার সম্মান বাড়ানোর জন্যই আপনাদের আমরা দিয়েছি। আপনারা ভয় পাবেননা। কেউ যদি বলে আপনারা নৌকার বিরুদ্ধে যাবেন না,আপনারা বইলেন আমরা নৌকার বিরুদ্ধে যাইনাই, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন নৌকার প্রশংসা আরও বাড়ানোর জন্য, নৌকার সম্মান আরও বাড়ানোর জন্য, আন্তর্জাতিক নানা ষড়যন্ত্রকে ব্যাহত করতে। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন তোমরা দাড়াইয়া নৌকার সম্মান আরও বাড়াও, আওয়ামী লীগের সম্মান আরও বাড়াও। আমরা আওয়ামী লীগেরা দরকার হলে নিজেরাই প্রতিযোগিতা করে দেখাতে পারি আমরা যে যোগ্য আমরাই থাকব অন্যকেউ নয়।”
 

প্রসঙ্গ, সাতবার নির্বাচন করায় প্রয়াত পার্লামেন্টারিয়ান রাজনীতিবিদ সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের নির্বাচনী এলাকা সুনামগঞ্জ-২ (দিরাই-শাল্লা) ভোটের রাজনীতিতে ‘সুরঞ্জিতের আসন’ হিসেবে পরিচিত। ২০১৭ সালের ৫  ফেব্রুয়ারি তিনি মারা গেলে, তার স্ত্রী ড. জয়া সেনগুপ্তা ওই বছরের ৩০ মার্চ অনুষ্ঠিত উপনির্বাচনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। এরপর ২০১৮ সালের নির্বাচনেও জয়া সেন দ্বিতীয়বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। এবার দলের মনোনয়ন পান নি তিনি। স্থানীয়ভাবে প্রচার আছে বার্ধক্ষ্যের কারণেই মনোনয়ন দেওয়া হয় নি জয়াকে।
 
এবার এই আসনে মনোনয়ন পান শাল্লা উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও শাল্লা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আব্দুল মান্নান চৌধুরী’র ছেলে চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ (আল-আমিন চৌধুরী)।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত