সিলেটটুডে ডেস্ক

২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ১৬:৫১

বাধ্য না হলে র‌্যাব গুলি করে না: বিদায়ী ডিজি

পরিস্থিতি সামাল দিতে একেবারেই বাধ্য না হলে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) সদস্যরা কখনও গুলি করে না বলে দাবি করেছেন বাহিনীর বিদায়ী মহাপরিচালক (ডিজি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন।
 
রাজধানীর কারওয়ান বাজারে বুধবার সকালে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে বিদায়ী বক্তব্য তুলে ধরতে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এমন দাবি করেন।

৩০ সেপ্টেম্বর পুলিশের ৩১তম মহাপরিদর্শক (আইজিপি) হিসেবে দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন।

বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে করা প্রশ্নে চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, ‘র‌্যাব পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে যেখানে যেটুকু প্রয়োজন পড়ে, আইন মেনে সেটুকু শক্তি প্রয়োগ করে। আমরা যখন আক্রান্ত হই, তখনই আমাদের পাল্টা জবাব দিতে হয়।

‘সিচ্যুয়েশন যেমন ডিমান্ড করে, আমরা ঠিক তেমন ব্যবস্থা নিয়ে থাকি। এমন কখনও হয় না যে, কেউ আমাদের ধাক্কা দিল আর আমরা গুলি করে দিলাম। র‌্যাবের প্রত্যেক সদস্যকে এসব বিষয়ে নিয়মিত প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। এলিট ফোর্স হিসেবে আমাদের সবসময় চ্যালেঞ্জিং পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে কাজ করতে হয়।’

তিনি বলেন, ‘অপরাধীরা তাদের অপরাধ সংগঠিত করার জন্য তাদের সর্বশক্তি প্রয়োগ করে থাকে। আমরা তাদের বাধা দিতে গেলে তারা আমাদের হাতে ধরা না পড়তে ও আমাদের বাধা অতিক্রম করে অপরাধকাজ সংঘটিত করতে আমাদের ওপর হামলা করে বসে। তখন বাধ্য হয়ে র‌্যাব সদস্যরা তাদের প্রশিক্ষণ অনুযায়ী ব্যবস্থা নেন।’

র‌্যাব ডিজি বলেন, ‘এতে যে শুধু অপরাধীরাই আহত বা নিহত হয় বিষয়টা কিন্তু তেমন না। আমাদের অনেক র‌্যাব সদস্য আহত, নিহত হয়েছেন। অনেকের অঙ্গহানি হয়ে চাকরি করার সক্ষমতা হারিয়েছে। তাছাড়া এমন কোনো ঘটনা ঘটলে দেশের প্রচলিত আইনেও ঘটনার তদন্ত হয়।

‘ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে সুরতহাল করে, মর্গে ডাক্তার পোস্টমোর্টেম করে, এরপর আদালত আইনজীবিরা আর্গুমেন্ট করে তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে বিচারক বিচার করেন। এর কোনটির সঙ্গে র‌্যাব জড়িত থাকে না। র‌্যাব যদি অযথাই এমন কোনো ঘটনা ঘটাতো তাহলে দেশের আইনেইতো শাস্তি হতো।’

যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কাজ করছে উল্লেখ করে দ্রুতই এর সুরাহা হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন র‌্যাবের বিদায়ী মহাপরিচালক।

সাংবাদিকদের অন্য এক প্রশ্নে আইজিপি হিসেবে দায়িত্ব পালন করতে যাওয়া চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, ‘নির্বাচনকালীন সময়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী নির্বাচন কমিশনের অধীনে কাজ করে থাকে। এ সময় কমিশনের নির্দেশনার বাইরে যাবার কোন সুযোগ নেই।

‘পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সকল ইউনিট কোনো রাজনৈতিক দলের হয়ে কখনো কাজ করে না। তারা শুধু নির্বাচন চলাকালীন সময়ে আইনশৃঙ্খলার পরিস্থিতির কোনো অবনতি না ঘটে সেজন্য কাজ করে।’

এর আগে র‌্যাব মহাপরিচালক হিসেবে নিজের দুই বছরের বেশি সময়ের দায়িত্বে পালনরত অবস্থায় র‌্যাবের অর্জন তুলে ধরেন চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন। করোনা মহামারির সময়ে সর্বোচ্চ ঝুঁকি নিয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা ও সাধারণের পাশে থাকা র‌্যাবের সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ ও এটিকেই র‌্যাবের সবচেয়ে বড় সফলতা এবং সাধারণের র‌্যাবের প্রতি আস্থার প্রতীক বলে উল্লেখ করেন তিনি।

আইজিপি হিসেবে দায়িত্ব দেয়ায় প্রাধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত