নিজস্ব প্রতিবেদক

০৬ অক্টোবর, ২০২২ ১৮:৫৭

সিলেট আমার লাকি গ্রাউন্ড: তৃষ্ণা

আগের ম্যাচেই পাকিস্তানের বিরুদ্ধে বিশাল পরাজয়ে বড় ধাক্কা খেয়েছিলো নারী এশিয়া কাপের বর্তমান চ্যাম্পিয়ান বাংলাদেশ। সেই নাজুক অবস্থা থেকে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশের মেয়েরা। বৃহস্পতিবার বিকেলে সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে নিজেদের ৩য় মাচে মালয়োশিয়ার বিপক্ষে  ৮৮ রানের বড় ব্যবধানে জিতেছে তারা।
দলের এমন জয়ে এদিন দারুণ ভূমিকা রেখেছেন অভিষিক্ত পেসার  ফারিহা তৃষ্ণা। নিজের প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচেই হ্যাট্রিক তুলে নিয়েছেন তিনি।

স্বভাবতই ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে এসেছিলেন তৃষ্ণা। অভিষককে এমন রাঙিয়ে তুলতে পারার আনন্দ তার চোথে মুখে।

হ্যাট্রিকের অনুর্ভতি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, চেষ্টা করছি অভিষেক ম্যাচে ভালোটা দেয়ার। হ্যাট্রিক হওয়ায় খুব খুশি। অভিষেক ম্যাচে স্মরণীয় কিছু একটা করতে পেরেছি এজন্য ভালো লেগেছে।

এই মাঠেই ঘরোয়া ম্যাচে ৬ উইকেট পেয়ে আলোচনায় এসেছিলেন এই বাঁ হাতি পেসার। সিলেটের মাঠে ঘরোয় লীগের পারফরম্যান্সও অভিষেকে আত্মবিশ্বাস জুগিয়েছিলো তাকে। তৃষ্ণা বলেন, এখানে অভিষেক হওয়ায় আত্মবিশ্বাস অনেক বেশি ছিলো। কারণ এই মাঠে আমরা অনেক খেলেছি। আমার জন্য এটি লাকি গ্রাউন্ডও। তাই যখনই খেলি এই মাঠে খেলি ভালো কিছু করার চেষ্টা করি, ভালো কিছু হয়ও। একারণে অভিষেকে ভালো কিছুর প্রত্যাশা ছিলো। চেষ্টাও করছি।

হ্যাট্রিকের তিনটি ডেলিভারি নিয়ে তৃষ্ণা বলেন, আমি কেবল স্পটে বল করে যাওয়ার চেষ্টা করেছি। সুইংও পেয়েছি। দুই বলে দুটি উইকেট পাওয়ার পর হ্যট্রিক ডেলিভারিটা স্পট অনুযায়ী করার কথা বলেছিলেন অধিনায়কও। আমি সেটিই করেছি। কোন ভ্যারিয়েশন আনিনি। তাতেই কাজ হয়েছে।

দেশের সীমান্ত জেলা পঞ্চগড় থেকে উঠে এসেছেন বাংলাদেশের এই নতদুন সেনসেশন। দেশের প্রান্ত থেকে এভাবে এভাবে ক্রিকেটের শীর্ষ পর্যায়ে উঠে আসার জার্নিটা সহজ ছিলো না জানিয়ে তৃষ্ণা বলেন, পঞ্চগড় থেকে উঠে আসা অনেক কঠিন। মেয়েদের জন্য আরও কঠিন। মেয়েদের ক্রিকেট খেলার তেমন সুযোগ নেই সেখানে। মাঠ ও অনুশীলনের ব্যবস্থা নেই। তবু বাবা মার সমর্থন পেয়েছি। শিক্ষকরা সহায়তা করেছেন।

ঘরোয়া ক্রিকেটে পারফরম্যন্স দিয়ে কিছুদিন ধরেই আলোচনায় ছিলেন তৃষ্ণা। অনেকদিন ধরে আছেন জাতীয় দলের পাইপ লাইনেও। তবু মাঠে নামা হচ্ছিলো না তার। তবু হতাশ হয়ে পরেননি জানিয়ে তৃষ্ণলা বলেন, আমার লক্ষ্য ছিলো যেদিনই খেলবো সেদিনই ভালো কিছু করার। অভিষেকের ব্যাপারে আজকে সকালেই জানতে পেরেছি। তবে নিজেকে আগে থেকেই আমি প্রস্তুত করেছি। অনুশীলন করে গেছি। বিশ্বাস ছিলো যেদিন খেলবো ভালো কিছু করবো। অভিষেকে দেরী হওয়া নিয়ে হতাশ ছিলাম না। নিজেকে বরং প্রস্তুত করছিলাম।

পরের ম্যাচে ভারতকে হারানোর জন্যও দল প্রস্তুত বলে জানালেন তৃষ্ণা। শনিবার এই মাঠেই শক্তিশালী ভারতের বিপক্ষে মাঠে নামবে বাংলাদেশ।

টুর্নামেন্টে এখন পর্যন্ত নিজেদের তিন ম্যাচে দুটিতে জয় পেয়েছে স্বাগতিকরা। বৃহস্পতিবার আগে ব্যাটিং নেমে রশিদা খাতুন ও অধিনায়ক নিগার সুলতানা জ্যোতির অর্ধশতকে ১২৯ রান তুলে বাংলাদেশ।
পরে ব্যাটিংয়ে নেমে কোন প্রতিরোধই গড়ে তুলতে পারেনি মালয়েশিয়া। মাত্র ৪১ রানে গুটিয়ে যায় তারা। তাদের কোন ব্যাটারই ছুঁতে পারেননি দুই অঙ্কের রান।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত