তাহিরপুর প্রতিনিধি

০১ অক্টোবর, ২০২০ ২০:২৮

তাহিরপুরে বিজিবির ভ্যান, টি-স্টল, নৌকা এবং গবাদি পশু বিতরণ

'ত্রাণ চাই না,সহযোগিতা চাই' এই স্লোগানকে সামনে রেখে সুনামগঞ্জ ব্যাটালিয়নের (২৮ বিজিবি) সীমান্তবর্তী এলাকায় অসহায়, গরীব, দুঃস্থ ও হতদরিদ্র জনসাধারণকে ভ্যান, টি-স্টল, নৌকা এবং গবাদি পশুসহ ৩ হাজার ৮৫০ প্যাকেট ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

গত ২৮ থেকে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত তাহিরপুর, দোয়ারা বাজার, ধর্মপাশা উপজেলা সীমান্ত এলাকায় বসবাসরত ২৯টি পরিবারের মাঝে এ সকল ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

এ সময় তাহিরপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান করুনা সিন্ধু চৌধুরী বাবুল, এসিল্যান্ড সৈয়দ আমজাদ হোসেন, ভাইস চেয়ারম্যান রিয়াজ উদ্দিন খন্দকার লিটন, তাহিরপুর থানার ওসি মোহাম্মদ আব্দুল লতিফ তরফদার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হোসেন খান, সাধারণ সম্পাদক অমল কান্তি কর, উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান খসরুল আলম, বাদাঘাট ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান নিজাম উদ্দিন প্রমুখ।

বিজিবি জানায়, চলমান করোনাভাইরাস (COVID-19) এবং সম্প্রতি বন্যা পরবর্তী পরিস্থিতিতে সুনামগঞ্জ জেলার নদী-নালা ও হাওড়বাওড় বেষ্টিত সীমান্তবর্তী এলাকার জনসাধারণ অত্যন্ত দারিদ্রসীমার নিচে বসবাস করছে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে সীমান্ত এলাকায় সমন্বিত কর্মপরিকল্পনা (Action Plan) এর ''আলোকিত সীমান্ত'' প্রকল্পের আওতায় সীমান্ত এলাকায় বসবাসরত (সীমান্তের শূন্য লাইনের কাছাকাছি যেখানে স্থানীয় প্রশাসন ও অন্য কোন সংস্থার ত্রাণ সামগ্রী পৌঁছে না) দুঃস্থ, অসহায়, গরীব ও হতদরিদ্র জনসাধারণের মধ্যে বিভিন্ন সময়ে সুনামগঞ্জ ব্যাটালিয়ন (২৮ বিজিবি) এর দায়িত্বপূর্ণ সীমান্তবর্তী এলাকায় সহায়তা করা হয়।

সুনামগঞ্জ ব্যাটালিয়ন (২৮ বিজিবি) অধিনায়ক লে. কর্নেল মাকসুদুল আলম জানান, 'আলোকিত সীমান্ত' প্রকল্পের আওতায় বিজিবি কোম্পানী কমান্ডার ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে যাচাইবাছাই করে বয়স্ক, বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত, স্বামী পরিত্যক্তা, প্রতিবন্ধী, কিছু সংখ্যক পরিবারকে নির্বাচন করা হয়। তাদেরকে আর্থিক সহযোগিতা করা হয়েছে। তাদের স্বাবলম্বী করার জন্য সুনামগঞ্জ ব্যাটালিয়ন (২৮ বিজিবি) এর প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত