তাহিরপুর প্রতিনিধি

২৩ জানুয়ারি, ২০২৩ ১৬:২৪

তাহিরপুরে হাওরের ক্ষতি হলে কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারি

হাওর রক্ষাবাঁধ নির্মাণে সময় ক্ষেপণ করায় ও দ্রুত বাঁধের কাজ শুরু করে শেষ করার দাবীতে সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার হাওর বাঁচাও আন্দোলন মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে।

সোমবার (২৩ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ১১টায় আব্দুর জহুর চত্বরে ঘণ্টা ব্যাপী মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধন কৃষক, শ্রমিকসহ সর্বস্তরের মানুষ অংশ গ্রহণ করে।

হাওর বাঁচাও আন্দোলনের আয়োজনে এসময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা শাখার সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক সাইদুল কিবরিয়া,মোসায়েল আহমদ, সদস্য সচিব হোসাইন শরীফ বিপ্লব, যুগ্ম আহবায়ক তোজাম্মিল হক নাসরুম,বীর মুক্তিযোদ্ধা ইসলাম উদ্দিন, কৃষক হাফিজ আলী, অফলাকুল,আক্তার হোসেন প্রমুখ।  

হাওরের কোনো ক্ষতি হলে কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ার করে মানববন্ধন বক্তাগন বলেন, পিআইসি গঠনে অনিয়ম ও দুর্নীতির কারণে প্রতিবছর হাওরের ব্যাপক ক্ষতি হয় আর সরকার কোটি কোটি টাকা হাওর রক্ষা ব্যয় করে। কিন্তু রাগব বোয়াল, দালাল ও কিছু সুবিধা ভোগী একটি সিন্ডিকেট এর সুবিধা নিচ্ছে। তারা তাদের মত করে চাপ প্রয়োগ করে তাদের মনোনীত লোককে পিআইসি দেয়। নিয়ম অনুযায়ী এতে করে সঠিক ভাবে হাওর রক্ষা বাঁধে কাজ হয় না সামান্য পানির চাপে বাঁধ ভেঙে যায়। পিআইসি গঠনেও দেরী আবার পিআইসি ঘোষণা করেও শেষ হয় না আবার কেটে অন্য নাম দেয়।
এসব অনিয়ম ও দুর্নীতির কারণে সঠিক সময়ে বাঁধের কাজ হয় না দুর্ভোগে পরতে হয় কৃষকদের। এই অনিয়মকারীদের বিরোধ কঠোর আন্দোলন ও শান্তির আওতায় আনা হবে বলে জানান বক্তাগন।

কৃষক অফলাকুল জানান, আমি পিআইসি পেয়েছি। যখন কাজে যাব তখন আমাকে জানানো হয় আমার নাম কাটা হয়েছে কেন কাটা হয়েছে তা আমাকে জানানো হয়নি।

উপজেলা শাখার সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক সাইদুল কিবরিয়া বলেন, কাবিটা নীতিমালা-২০১৭ অনুসারে ৩০শে নভেম্বরের মধ্যে প্রাক্কলন শেষ করে ১৫ই ডিসেম্বর ফসলরক্ষায় বাঁধের কাজ শুরু এবং ২৮ফেব্রুয়ারি শেষ করার কথা। কিন্তু নিয়ম নীতির তোয়াক্কাই করছেন না উপজেলায় প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি (পিআইসি) দায়িত্বশীলরা। এর ফলে ২৮শে ফেব্রুয়ারির মধ্যে বাঁধের কাজ শেষ করার সরকারি নির্দেশ থাকলে সময় ক্ষেপণের কারণে তা আর হবে না।

এছাড়াও জেলার ১২টি উপজেলার হাওর বাঁচাও আন্দোলন এর উদ্যোগে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে।



আপনার মন্তব্য

আলোচিত