সিলেটটুডে ডেস্ক

১৩ মে, ২০১৬ ১৩:০৯

‘যৌতুক না পেয়ে’ স্ত্রীসহ ১০ জনকে ‘কামড়ে’ দিলেন যুবক

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় যৌতুকের টাকা না পেয়ে শ্বশুর বাড়িতে গিয়ে স্ত্রীসহ অন্তত ১০ জনকে কামড়ে আহত করার  অভিযোগ উঠেছে এক যুবকের বিরুদ্ধে।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত (শুক্রবার) ১টায় রনি নামের এই যুবক এমন ঘটনা ঘটাল বলে জানা যায়। অবস্থা বেগতিক হওয়ার পর স্থানীয় জনতার সহয়তায় তাকে পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়েছে। রনি ফতুল্লার দাপা ইদ্রাকপুর এলাকার বাদশা মিয়ার ছেলে। রনির কামড়ে গুরুতর আহতদের মধ্যে স্ত্রী মলি, জনি, উজ্জ্বল, হালিমকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অন্যরা স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নিয়েছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, কয়েক বছর আগে রনি সস্তাপুর গাবতলা এলাকার মৃত. আব্দুল হাইয়ের ছোট মেয়ে মলি আক্তারকে বিয়ে করেন। বিয়ের পর থেকে যৌতুকের জন্য মলিকে নানাভাবে নির্যাতন করেন। কয়েকদিন আগে ৫০ হাজার টাকা যৌতুকের জন্য মলিকে মারধর করে বাবার বাড়ি পাঠিয়ে দেয়।

এদিকে, বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে রনি হঠাৎ শ্বশুর বাড়ি এসে হাজির হন। এ সময় স্ত্রী মলিকে ডেকে যৌতুকের টাকা চেয়ে চিৎকার চেঁচামেচি করে উন্মত্ত আচরণ শুরু করেন। এ সময় স্ত্রীর সাথে বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে জিনিস পত্র ভাঙুর করে মলিকে কামড়িয়ে আঘাত করেন, মলির বড় ভাই জনি এগিয়ে আসলে তাকেও বাঁশের ফালি দিয়ে পিটিয়ে ও কামড়িয়ে আহত করেন তিনি।

পরে চাচা হালিম, চাচাতো ভাই উজ্জল ছুটে আসলে তাদেরও কামড়িয়ে আহত করে। তখন তাদের উদ্ধার করতে গেলে এলাকার আরও কয়েক জনকে কামড়ায় রনি। পরে খবর পেয়ে পুলিশ রনিকে আটক করে।

রনিকে আটকের সত্যতা নিশ্চিত করে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামাল উদ্দিন জানান, ঘটনা তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
  

আপনার মন্তব্য

আলোচিত