আজ রবিবার, ০৭ জুন, ২০২০ ইং

Advertise

জাপানের ‘সেরা তরুণ বিজ্ঞানী’ নিয়ে মিথ্যাচার ও গণমাধ্যমের ভূমিকা

এস এম নাদিম মাহমুদ  

একাডেমিক ব্যস্ততায় মাস খানেক ধরে ফেইসবুকের বাহিরে ছিলাম। এর মধ্যে ঘটে গিয়েছে অনেক কিছু। ফেইসবুকে না থাকায় আমি সম্ভবত এই একটি খবর মিস করেছিলাম। তবে আমার বিশ্বাস যারা এই লেখাটি পড়ছেন, তাদের একটি বড় অংশ  ইতিমধ্যে দেশের বিভিন্ন গণমাধ্যমে সাম্প্রতিক প্রকাশিত এক খবরে জেনেছেন ‘এবার জাপানের সেরা তরুণ বিজ্ঞানী নির্বাচিত হয়েছেন মো. আরিফ হোসেন।

গত ২৪ অক্টোবর জাপানিজ সোসাইটি ফর ইনহ্যারিটেড মেটাবোলিক ডিজিজের ৬১তম বার্ষিক সম্মেলনে জাপানের জিকেই বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক আরিফ হোসেন ‘সেরা তরুণ বিজ্ঞানী’ হিসেবে যে স্ব-ঘোষিত ঘোষণাটির পর দেশের গণমাধ্যমে সংবাদটি প্রকাশের হিড়িক পড়ে গিয়েছে।

এই ধরনের পুরস্কার শুধু জাপানে কেন বিশ্বের যেকোনো দেশে যদি কোন বাঙালি পায় তাতে আমাদের গর্বে বুক ফুলে উঠে। আমরা সত্যি আনন্দবোধ করি।

আরিফ হোসেন আমাদের ওসাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি করেছেন ২০১৪ সালের এপ্রিলে । এই ক্ষেত্রে এমন সংবাদ নিয়ে আমারও গর্ব করা কথা ছিল। প্রথম দিকে করেছিলামও, কিন্তু পরবর্তীতে যখন এই পুরস্কারের রহস্য উন্মোচন করতে পেরেছি, তখন সত্যি নিজের কাছে অসহায় লাগছে। এতো বড় একটি পুরস্কার নিয়ে যে মিথ্যাচার হয়েছে তা পাঠক আপনারা জানলেও গা শিউরে উঠতে পারে। একজন বাঙালি হিসেবে আমি লজ্জিত। তাই বিবেকের তাড়নায় আরিফ হোসেনের বর্ষসেরা তরুণ বিজ্ঞানীর খবর নিয়ে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরার প্রয়োজনবোধ করছি। এই বিষয়টি আলোচনার আগে চলুন দেখি, আরিফকে নিয়ে বাংলাদেশে গণমাধ্যমে কী কী খবর এসেছে তা একটু দেখে আসি।