নিজস্ব প্রতিবেদক

০২ ডিসেম্বর, ২০২৩ ২২:২৯

মিসবাহকে শুভকামনা মোমেনের

সিলেট-১ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নে আবারও প্রার্থী হয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ.কে আব্দুল মোমেন। এ আসনে এবার দলের মনোনয়ন চেয়েছিলেন আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ। দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন তিনি।

নিজ দলের এই ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থীকে শুভকামনা জানিয়েছেন আবুল মোমেন। শনিবার সন্ধ্যায় এক মতবিনিময় সভায় মিসবার নাম উল্লেখ না করে মোমেন বলেন, সিলেট-১ আসনে বিভিন্ন দল থেকে প্রায় ৭ জন প্রার্থী হয়েছেন। সবার জন্য শুভ কামনা। একজন স্বতন্ত্র প্রার্থীও হয়েছেন। তার জন্যও শুভ কামনা।

মোমেন বলেন, আমাদের বিশ্বাস, যারা দীর্ঘদিন থেকে রাজনীতি করেন বা উন্নয়নের পক্ষে তারা কখনো আওয়ামী লীগের বিপক্ষে গিয়ে ভোট দিবেন না। তারা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উন্নয়নের পক্ষেই ভোট দিবেন। নৌকাকেই ভোট দিবেন। সেজন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উন্নয়ন প্রায় ৬ লক্ষের ওপরে ভোটারের কাছে পৌঁছে দিতে হবে।


শনিবার (২ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় ধোপাদিঘীর পাড়স্থ হাফিজ কমপ্লেক্সে মহানগর আওয়ামী লীগ ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাথে মতবিনিময় করেন আব্দুল মোমেন।

এসম তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী  শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সারাদেশে অভূতপূর্ব উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। যে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত আছে তা আগামীতেও হবে। নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত করতে আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ । মহানগর আওয়ামী লীগ ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিতি এটাই প্রমাণ করে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন,  মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে করোনাকালীন সময়ে বাংলাদেশ বিশাল সফলতা দেখিয়েছে। ২২ বিলিয়ন ডলারের প্রণোদনা দিয়েছেন। আমেরিকায় যেখানে ১২ লক্ষ লোক মারা গিয়েছে বাংলাদেশে সেখানে মৃত্যু হার ছিল খুবই কম। অতীতে ১০ বিলিয়ন ডলারের রপ্তানি আয় ছিল। বর্তমানে ৬০ বিলিয়ন ডলারের রপ্তানি আয় অর্জিত হয়েছে। দারিদ্রতা যেখানে ছিল ৪২%। বর্তমানে ১৮.৭% এ দারিদ্রতার হার দাঁড়িয়েছে। সিলেটেও ব্যাপক উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। ইতিমধ্যে অনেকেই বক্তৃতায় সিলেটের উন্নয়ন কথা বলেছেন। আগামীতে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে যেতে হবে। নতুন ওয়ার্ডগুলোতেও কাজ করতে হবে। ঐক্যবদ্ধভাবে কাজের মাধ্যমেই নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত করতে হবে। একটা রেওয়াজ আছে, সিলেট-১ আসনে যে দল বিজয়ী হয় সেই দলই সরকার গঠন করে। সেজন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে এই আসন আমাদের উপহার দিতে হবে। আমি আপনাদের পাশে ছিলাম ও  আছি। আপনাদের সহযোগিতা ও ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টার মাধ্যমেই নৌকা বিজয়ী হবে, ইনশাআল্লাহ।  

মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আসাদ উদ্দিন আহমদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মো: জাকির হোসেনের পরিচালনায় মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ও যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী।

এছাড়াও বক্তব্য রাখেন মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মো: সানাওর, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক তপন মিত্র, দপ্তর সম্পাদক খন্দকার মহসিন কামরান, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক আজহার উদ্দিন জাহাঙ্গীর,  মহিলা বিষয়ক সম্পাদক আসমা বেগম,যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক সেলিম আহমদ সেলিম, সাংস্কৃতিক সম্পাদক রজত কান্তি গুপ্ত, সহ-প্রচার সম্পাদক সোয়েব আহমদ, কার্যনির্বাহী সদস্য এডভোকেট মোহাম্মদ জাহিদ সারওয়ার সবুজ, সুদীব দে, সাব্বির খান, জামাল আহমদ চৌধুরী, ওয়ার্ড থেকে জালাল উদ্দীন শাবুল, বদরুল ইসলাম বদরু, মানিক মিয়া, আহমেদ হান্নান,ফয়সাল আক্তার ছোবহানী।

এসময়ে উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এডভোকেট মফুর আলী, ফয়জুল আনোয়ার আলাওর, জগদীশ চন্দ্র দাস, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আজাদুর রহমান আজাদ,বিধান কুমার সাহা,  ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক নজমুল ইসলাম এহিয়া, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আব্দুর রহমান জামিল, শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক ইলিয়াছুর রহমান ইলিয়াছ,  শ্রম সম্পাদক আজিজুল হক মঞ্জু,  উপ-দপ্তর সম্পাদক অমিতাভ চক্রবর্ত্তী রনি, কোষাধ্যক্ষ লায়েক আহমেদ চৌধুরী, কার্যনির্বাহী সদস্য আজম খান, এডভোকেট কিশোর কুমার কর, মোঃ আব্দুল আজিম জুনেল, নুরুন নেছা হেনা, মুক্তার খান,  এমরুল হাসান, সৈয়দ কামাল, সাইফুল আলম স্বপন,  রোকসানা পারভীন, ওয়াহিদুর রহমান ওয়াহিদ,  তৌফিক বক্স লিপন, জামাল আহমদ চৌধুরী, খলিল আহমদ, আবুল মহসিন চৌধুরী মাসুদ, জুমাদিন আহমেদ, সম্মানিত জাতীয় পরিষদ সদস্য এডভোকেট রাজ উদ্দিন, উপদেষ্টা কানাই দত্ত, মহানগর যুবলীগের সভাপতি আলম খান মুক্তি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ  গৌসুল আলম, মুহিবুর রহমান ছাবু, তাজ আহমদ লিটন,বদরুল হোসেন লিটন, জাবেদ আহমদ সহ অন্যান্য নেতা-কর্মীবৃন্দ।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত