বানিয়াচং প্রতিনিধি

০৩ ডিসেম্বর, ২০২৩ ০০:০৮

নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হতে প্রধানমন্ত্রী কোন নির্দেশনা দেননি: আবু জাহির

আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে হবিগঞ্জ-২ বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জবাসীদের ভুল ব্যাখ্যা দেয়া হচ্ছে বলেন অভিযোগ করেছেন সদর-লাখাই-শায়েস্তাগঞ্জ (হবিগঞ্জ-৩) আসনের সাংসদ ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আবু জাহির।

তিনি শনিবার (২ ডিসেম্বর) বেলা ১১টায় স্থানীয় আমবাগান উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বানিয়াচং উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে বিশেষ আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।

এমপি আবু জাহির আরো বলেন, সংসদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হতে প্রধানমন্ত্রী এমন কোন নির্দেশনা দেন নি। স্বতন্ত্র আর ডামি প্রার্থী এক না। এটা নিয়ে বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জবাসীদের ভুল ব্যাখ্যা দেয়া শুরু হয়েছে। এই আসনে আওয়ামী লীগের একমাত্র প্রার্থী সাবেক এমপি মরহুম শরীফ উদ্দিন আহমেদ এর পুত্র জেলা আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক ময়েজ উদ্দিন শরীফ রুয়েল।

তিনি বর্তমান এমপি মজিদ খানের সমালোচনা করে বলেন, একজন ছেলের বয়সী ব্যক্তির সাথে নির্বাচন করতে হবে এটা চরম লজ্জার। আওয়ামী লীগের পরিচয়ে নৌকা নিয়ে পরপর তিনবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন এবার নৌকা পাননি বলে স্বতন্ত্র হিসেবে নির্বাচন করতে হবে এটা কেন। মনে রাখা উচিত ৯৩ সালে মরহুম শরীফ উদ্দিন আহমেদের হাত ধরে আওয়ামী লীগের যোগদান করেছিলেন আপনি। তার ছেলের সাথে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করবেন সেটা হাস্যকর বিষয়। যাদেরকে নিয়ে ঢাকায় মিটিং করেছিলেন তারা এখন আওয়ামী লীগের পতাকাতলে। দলের সিদ্ধান্ত না মেনে দলের বাইরে গিয়ে নির্বাচন যারা করে তারা ইতিহাসের আস্তাকুড়ে নিক্ষেপ হয়।

মজিদ খানের সমালোচনা করে আবু জাহির আরো বলেন, ওয়াদা করেও ওয়াদা ভঙ্গ করেছেন আপনি। আওয়ামী লীগের আদর্শ থেকে বিচ্যুতি হবেন না। আগামী ১৭ তারিখের মধ্যে স্বতন্ত্র মনোনয়ন উত্তোলন করে নৌকাকে বিজয়ী করতে আওয়ামী লীগের সাথে এক হয়ে কাজ করবেন আশা করি। তলে তলে ডুব দিয়ে পানি পান না করে এখনো সময় আছে সরাসরি এসে নৌকার পক্ষে কাজ করতে দলীয় নেতাকর্মীদের আহবান জানান এমপি আবু জাহির।

বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জবাসী এবার রুয়েলকে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে মরহুম এমপি শরীফ উদ্দিন আহমেদ এর ঋণ শোধ করার সময় এসেছে বলেও তিনি বক্তব্যে তোলে ধরেন।

একপর্যায়ে হবিগঞ্জ-২ আসনে নৌকার প্রার্থী অ্যাডভোকেট ময়েজ উদ্দিন শরীফ রুয়েলকে উপস্থিত নেতাকর্মীদের মধ্যে পরিচয় করিয়ে তাদের হাতে তোলে দিয়ে বিজয়ী করার জন্য দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

অনুষ্ঠানের একফাঁকে নিজের অনুভূতি ব্যক্ত করে আবগেঘন বক্তব্য রাখেন হবিগঞ্জ-২ বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জ আসনের আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী অ্যাডভোকেট ময়েজ উদ্দিন শরীফ রুয়েল।

আলোচনা সভায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আমির হোসেন মাষ্টার এর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আঙ্গুর মিয়ার সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য প্রদান করেন, জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা বীর মুক্তিযোদ্ধা হায়দারুজ্জামান ধনমিয়া, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি শেখ সামছুল হক, সজীব আলী, ডা: অসিত রঞ্জন দাস, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র আতাউর রহমান সেলিম, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন চৌধুরী অসীম, অ্যাডভোকেট লুৎফুর রহমান তালুকদার, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নূর উদ্দিন চৌধুরী বুলবুল, অ্যাডভোকেট সুলতান মাহমুদ  জেলা আওয়ামী লীগের কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক রেজাউল মোহিত খান, বানিয়াচং উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা যুবলীগের সভাপতি আবুল কাশেম চৌধুরী, আজমিরীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মর্ত্তুজা হাসান, বানিয়াচং উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন খান, আজমিরীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মিছবাহ উদ্দিন ভুইয়া, সাধারণ সম্পাদক মনোয়ার আলী, জেলা কৃষকলীগের সভাপতি হুমায়ুন কবির রেজা।

আলোচনা সভায় আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এমপি পুত্র ব্যারিস্টার মো: ইফাত জামিল। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য প্রদান করেন সাবেক জজ ব্যারিস্টার এনামুল হক, লন্ডন আওয়ামী লীগ নেতা ড. মো : শাহনেওয়াজ  জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট চৌধুরী আববক্কর ছিদ্দিকী,  জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা কামাল আজাদ রাসেল, বানিয়াচং উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি বিপুল ভুষণ রায়, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এনামুল হোসেন খান বাহার,সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম কিবরিযা লিলু,শাহজাহান মিয়া,উপজেলা আওয়ামী লীগের দুর্যোগ ও ত্রাণবিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম, মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী জাহানারা আক্তার বিউটি, সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান প্রিয়তোষ রঞ্জন দেব, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু আশরাফ চৌধুরী বাবু, কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক সেবুল ঠাকুর, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাহমুদ হোসেন খান মামুন, এ জেড এম উজ্জ্বল, সাবেক সাধারণ সম্পাদক রিপন চৌধুরীসহ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি/সেক্রেটারিবৃন্দ। আলোচনা সভায় উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ছাড়াও ১৫টি ইউনিয়ন থেকে আগত সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে আওয়ামী লীগের আলোচনা সভাকে কেন্দ্র করে সকাল থেকেই দুই উপজেলা থেকে হাজার হাজার নেতাকর্মী নৌকার সমর্থনে রং বেরংয়ের ব্যানার, ফেস্টুন, বাদ্যযন্ত্র নিয়ে খন্ডখন্ড মিছিলসহকারে আলোচনাস্থলে উপস্থিত হন।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত