বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ইং

সিলেটটুডে ডেস্ক

১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১২:০৫

২২ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্র যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

জাতিসংঘের ৭৪তম সাধারণ অধিবেশনে যোগদানের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিউ ইয়র্কে যাচ্ছেন ২২ সেপ্টেম্বর রোববার। তিনি এই অধিবেশনে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করবেন।

অপরদিকে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার নিউ ইয়র্ক আগমন উপলক্ষে অতীতের মতো এবারও যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ সংবর্ধনা সভার আয়োজন করেছে। ২৮ সেপ্টেম্বর এই সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হবে।

এই সভা সফল করার লক্ষ্যে চলছে টাউন হল মিটিং। অপরদিকে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ ও আওয়ামী পরিবারের ব্যানারে পৃথক পৃথক সমাবেশ চলছে।

জাতিসংঘ সূত্রে জানা গেছে, আগামী ১৭ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে ৭৪তম সাধারণ অধিবেশন। আর ‘হাই লেভেল জেনারেল ডিবেট’ শুরু হবে ২৪ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার থেকে। এক সপ্তাহ জুড়ে চলবে এই ডিবেট। এ সময় বিশ্ব নেতৃবৃন্দ সাধারণ অধিবেশনে ভাষণ দেবেন। এর আগে ২৩ সেপ্টেম্বর সোমবার জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্থনিয় গুতেরেস ‘ক্লাইমেট সামিট’ বিষয়ে বিশেষ সভা আহবান করবেন এবং এদিন ইউনিভার্সেল হেলথ কভারেজ (ইউএইচসি) বিষয়ে উচ্চ পর্যায়ের সভা অনুষ্ঠিত হবে।

এদিকে জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশন উপলক্ষে বাংলাদেশ মিশনে ব্যস্ততা বেড়ে গেছে। মিশনে নিযুক্ত স্থায়ী প্রতিনিধি মাসুদ বিন মোমেনসহ সংশ্লিষ্টরা প্রধানমন্ত্রীর আগমনসহ এবারের অধিবেশনে বাংলাদেশের অবস্থা ও ভূমিকা নিয়ে করণীয় নিয়ে ব্যস্ত সময় অতিবাহিত করছেন।

কূটনৈতিক সূত্রে জানা গেছে, এবারের অধিবেশনে পুনরায় রোহিঙ্গা বিষয় ছাড়াও কাশ্মীর, আসাম প্রভৃতি বিষয় আলোচনায় প্রাধান্য পাবে। অপরদিকে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার নিউ ইয়র্ক আগমন উপলক্ষে অতীতের মতো যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ সংবর্ধনা সভার আয়োজন করেছে। আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর এই সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হবে।

ম্যানহাটনের মার্কাস হোটেলের বলরুমে এই দিন বেলা ১২টায় এই সংবর্ধনা সভা হবে বলে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ জানিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর সংবর্ধনা সফল করতে ব্যাপক প্রস্তুতি চলছে বলে নেতৃদ্বয় জানান।

যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের পাল্টাপাল্টি সমাবেশ: প্রধানমন্ত্রী ও দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনার নিউ ইয়র্ক আগমনকে কেন্দ্র করে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগে পাল্টাপাল্টি সমাবেশ চলছে। দলের মূল অংশ যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে এবং অপর অংশ আওয়ামী লীগ ও আওয়ামী পরিবারের ব্যানারে এই সভা-সমাবেশ করছে।

দলের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদের নেতৃত্বে মূল দল প্রধানমন্ত্রীর সংবর্ধনা সফল করতে টাউন হল মিটিং-এর আয়োজন করছে। এই সভার অংশ হিসেবে ৯ সেপ্টেম্বর সোমবার জ্যামাইকায় একটি টাউন হল মিটিংয়ের আয়োজন করা হয়।

প্রবীণ প্রবাসী ছদরুন নূরের সভাপতিত্বে আয়োজিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান।

সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা ডা. মাসুদুল হাসান, সহসভাপতি লুৎফুল কবীর, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ, যুগ্ম সম্পাদক হাজী এনাম, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল হাসিব মামুন, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক মুজাহিদুল ইসলাম, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক আশরাফুজ্জামান, নিউ ইয়র্ক স্টেট আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন আজমল, আওয়ামী লীগ নেতা সরাফ সরকার, বদরুল হোসেন খান প্রমুখ।

অপরদিকে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ ও আওয়ামী পরিবারের ব্যানারে দলের অন্যতম উপদেষ্টা ও বাকসুর সাবেক জিএস ড. প্রদীপ রঞ্জন করের নেতৃত্বে দলের একটি অংশ যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের কাউন্সিল ও নতুন নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠার দাবি জানিয়ে আনছে। এই অংশের উদ্যোগে গত ৮ সেপ্টেম্বর রোববার সন্ধ্যায় জ্যাকসন হাইটসের পালকি পার্টি সেন্টারে এই কর্মীসভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় সভাপতিত্ব করেন কর্মী সমাবেশের আহবায়ক ও যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের মানবাধিকার বিষয়ক সম্পাদক মিসবাহ আহমেদ। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের অন্যতম উপদেষ্টা ও বাকসুর সাবেক জিএস ড. প্রদীপ রঞ্জন কর।

যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক ও কর্মী সভার সদস্য সচিব ফরিদ আলমের সঞ্চালনায় সভায় মঞ্চে উপবিষ্ট ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা তোফায়েল চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা মিজানুর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা কামরুল হাসান, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক আইরীন পারভীন, সাংগঠনিক সম্পাদক চন্দন দত্ত, আইন বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট শাহ বখতিয়ার, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক এম এ করীম জাহাঙ্গীর, সাবেক ছাত্রনেতা ও যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের কার্যকরী সদস্য হিন্দাল কাদের বাপ্পা, শরীফ কামরুল হীরা, ইলিয়ার রহমান, পেনসিলভেনিয়া আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আব্দুল হাই, যুক্তরাষ্ট্র মহিলা লীগের শাহনাজ মমতাজ, নিউ ইয়র্ক স্টেট আওয়ামী লীগের সহসভাপতি একেএম আলমগীর, যুক্তরাষ্ট্র শ্রমিক লীগের সহসভাপতি মঞ্জুর চৌধুরী, যুবলীগ নেতা জামাল হোসেন, যুক্তরাষ্ট্র স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহসভাপতি আশ্রাফ উদ্দীন, ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি শহীদুল ইসলাম প্রমুখ।

উল্লেখ্য, বিগত ৭ বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগে একই নেতৃত্ব চলছে। তিন বছর পর পর কাউন্সিল হওয়ার কথা থাকলেও সেই কাউন্সিলও হচ্ছে না, নতুন নেতৃত্বও আসছে না। ইতিপূর্বে প্রধানমন্ত্রী ও দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনা জাতিসংঘ সফরকালীন সময়ে ড. সিদ্দিকুর রহমানকে সভাপতি ও সাজ্জাদুর রহমান সাজ্জাদকে সাধারণ সম্পাদক মনোনীত করে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ, মুজিবুর রহমান মিয়াকে সভাপতি ও শাহীন আজমলকে সাধারণ সম্পাদক করে নিউইয়র্ক স্টেট আওয়ামী লীগ এবং কমান্ডার নুরন নবীকে সভাপতি ও এমদাদ চৌধুরীকে সাধারণ সম্পাদক মনোনীত করে নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের কমিটি গঠন করেছিলেন।

পরবর্তীতে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে সাজ্জাদুর রহমান সাজ্জাদ বহিষ্কার হওয়ার পর থেকে যুগ্ম সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করে আসছেন। অপরদিকে মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি কমান্ডার নবী সম্প্রতি ইন্তেকাল করেন। সব মিলিয়ে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের কাউন্সিলের দাবি জোরালো হয়ে উঠছে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত