বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯ ইং

নিজস্ব প্রতিবেদক

১৩ আগস্ট, ২০১৯ ২৩:৫২

নির্ধারিত সময়ের আগেই কোরবানির বর্জ্য অপসারণ করল সিসিক

পবিত্র ঈদ উল আযহা উপলক্ষে নগরীতে সৃষ্ট কোরবানির পশুর বর্জ্যরে পাশাপাশি চামড়া ব্যবসায়ীদের জড়ো করা চামড়া থেকে উদ্ভূত সকল প্রকার বর্জ্য নির্ধারিত সময়ের আগেই অপসারণ করেছে সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক)।

সোমবার (১২ আগস্ট) সকাল থেকে বর্জ্য অপসারণের কাজে থাকা সিলেট সিটি করপোরেশনের ১২০০ পরিচ্ছন্নতা কর্মী রাতভর কাজ করে সিলেট নগরীকে বর্জ্যমুক্ত করতে সক্ষম হয়েছেন। তাদের সার্বক্ষণিক তদারকিতে ছিলেন সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা হানিফুর রহমান।

অন্যদিকে চামড়া ব্যবসায়ীদের রাস্তায় জড়ো করে রাখা চামড়ার কারণে উদ্ভূত বর্জ্যও অপসারণ করে সিলেট সিটি কর্পোরেশন। দুর্গন্ধমুক্ত রাখার জন্য সিটি করপোরেশনের পরিচ্ছন্নকর্মীরা রাস্তা ব্লিচিং পাউডার ও পানি দিয়ে পরিষ্কার করেছে।

এ ব্যাপারে সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী জানান, কোরবানির পর পশুর বর্জ্য দ্রুত সরিয়ে নেওয়ার জন্য সিলেট সিটি করপোরেশন সর্বোচ্চ ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে এবং নির্ধারিত সময়ের আগেই নগরী পরিষ্কার করতে সক্ষম হয়েছে। নগরীর অলিগলিতেও কোন বর্জ্য বা দুর্গন্ধযুক্ত পরিবেশ বিরাজ করছে কিনা তা-ও খুঁজে বের করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।

সিলেট সিটি করপোরেশরেন বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা হানিফুর রহমান জানান, কোরবানির পর পশুর বর্জ্য দ্রুত সরিয়ে নেওয়ার জন্য সিলেট সিটি করপোরেশন সর্বোচ্চ ব্যবস্থা গ্রহন করেছে এবং নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই নগরী পরিষ্কার করতে সক্ষম হয়েছে। নগরীর অলিগলিতেও কোন বর্জ্য বা দুর্গন্ধযুক্ত পরিবেশ বিরাজ করছে কীনা তাও খুঁজে বের করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, ১২০০ পরিচ্ছন্নতাকর্মী, ৪০টি বর্জ্যবাহী ট্রাক এবং ১০টি পানির গাড়ি নিয়ে সোমবার সকাল থেকে বর্জ্য অপসারণে রাতভোর কাজ করেছে সিটি করপোরেশন। যার ফলেই মঙ্গলবার সকাল ১০টার মধ্যে নগরী থেকে বর্জ্য অপসারণ সম্ভব হয়েছে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত