সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯ ইং

মাধবপুর প্রতিনিধি

০৩ অক্টোবর, ২০১৯ ১৬:১২

মাধবপুরে পেঁয়াজের বাজার অস্থির, অভিযানেও মিলছে না ফল

হবিগঞ্জের মাধবপুরে পেঁয়াজের দাম প্রশাসনের অভিযানের পরেও নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হচ্ছে না। কয়েকজন ব্যবসায়ী গুদামে শত শত বস্তা পেয়াজ মজুদ রেখে এ পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছেন। বাজারে খুচরা ব্যবসায়ীরা তাই সীমিত আকারে অধিক মূল্যে পেঁয়াজ বিক্রি করছেন।

গত ১৫ দিন ধরে বেশ চড়া দামে পেঁয়াজ বাজার থেকে কিনছেন সাধারণ ভোক্তারা। এতে করে ভোক্তাদের মধ্যে মারাত্মক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

মাধবপুর বাজারে পেয়াজ কিনতে আসা সাধারণ ভোক্তারা অভিযোগ করে বলেন, ১৫ দিন ধরে মাধবপুর বাজারে পেয়াজের এমন অস্থিরতা চলছে। পাইকারি ব্যবসায়ীদের তালিকা অনুযায়ী পাইকারি বাজারে পেঁয়াজ ৬০ টাকা এবং খুচরা পর্যায়ে ৫০ টাকা দরে বিক্রি হওয়ার কথা। কিন্তু মাধবপুর বাজারের প্রভাবশালী কয়েকজন পেঁয়াজ ব্যবসায়ী তাদের নিজেদের দোকানে শত শত বস্তা পেয়াজ মজুদ রেখে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে অতি মুনাফার আশায় অধিক মূল্যে পেঁয়াজ বিক্রি করছেন। যে কারণে খুচরা ব্যবসায়ীরা এখন প্রতি কেজি পেঁয়াজ ৮০ থেকে ১১০ টাকা দরে বিক্রি করছেন।

বুধবার সন্ধ্যায় মাধবপুর বাজারে উচ্চ মূল্যে পেয়াজ বিক্রির খবর পেয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সহকারী কমিশনার (ভূমি) আয়েশা আক্তার বাজার স্থিতিশীল রাখার জন্য অভিযান করেন। এ সময় অধিক মূল্যে বাজারে পেয়াজ বিক্রির অভিযোগে একজন মজুদদারকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

এ সময় কয়েকজন পেয়াজ মজুদদারী প্রতিশ্রুতি দেন তালিকা অনুযায়ী প্রতি কেজি পেয়াজ ৫৫ টাকা দরে বিক্রি করবেন।

কিন্তু পরদিন বৃহস্পতিবার বাজার ঘুরে দেখা যায়, খুচরা ব্যবসায়ীরা সাধারণ ক্রেতাদের কাছে ৮০ টাকা থেকে ১১০ টাকা দরে পেয়াজ বিক্রি করছে।

খুচরা ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, বুধবার বাজারে অভিযান পরিচালনা করার কারণে পেঁয়াজ মজুদদাররা এখন খুচরা পর্যায়ে পেঁয়াজ বিক্রি করছে না। এ কারণে বাজারে পেঁয়াজের সরবরাহ কম। তাই পেঁয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণে নেই। তাই বাধ্য হয়েই খুচরা ব্যবসায়ীরা অধিক মূল্যে পেয়াজ বিক্রি করছে।

মাধবপুর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) আয়েশা আক্তার জানান, বুধবার আমরা বাজারে অভিযান পরিচালনা করে বাজার স্থিতিশীল রাখার জন্য পাইকারি ব্যবসায়ীদের জরিমানা ও সর্তক করেছি। আজ বৃহস্পতিবার বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে নতুন একটি নির্দেশনা আসছে সেই নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা অবৈধ পেঁয়াজ মজুদদারীদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করবো যাতে বাজার সাধারণ ক্রেতাদের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে থাকে।

 

আপনার মন্তব্য

আলোচিত