আজ রবিবার, , ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

সিলেটটুডে ডেস্ক

১৪ এপ্রিল, ২০১৮ ২০:০৪

এক ফোনকলেই বেঁচে গেল গাছ!

সরকারের টোল ফ্রি ‘৯৯৯’ নম্বরে ফোন করে সরকারের জায়গায় বেড়ে ওঠা একটা গাছকে রক্ষা করেছেন। ঘটনাটি মাদারীপুরের। সড়ক ও জনপথ (সওজ) অধিদপ্তরের জায়গা অবৈধ দখলে নিয়ে প্রভাবশালী একটি মহল একটি কড়ইগাছ কেটে ফেলছে এমন দৃশ্য দেখে স্থানীয় এক বাসিন্দা ‘৯৯৯’ নম্বরে ফোন করে তথ্য দেন। এরপর পুলিশের সহযোগিতায় রক্ষা পায় সওজের গাছটি।

শনিবার সকালে মাদারীপুর শহরের ডিসির ব্রিজ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এসংক্রান্ত এক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে দৈনিক প্রথম আলো।

প্রতিবেদন সূত্রে জানা যায়, মাদারীপুর শহরের সওজ বিভাগের জমি দখল করে গড়ে তোলা হয়েছে শহীদ মহসীন স্মৃতি সংঘ নামে একটি ক্লাবঘর। ওই ক্লাবঘরের পরিধি আরও বাড়াতে এখন কাটা হচ্ছে একটি বড় কড়ইগাছ। এর নেপথ্যে রয়েছেন সংঘের সভাপতি সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পাভেলুর রহমান শফিক খান। তিনি জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খানের চাচাতো ভাই। এনিয়ে গত ৩১ মার্চ প্রতিবেদনও প্রকাশ করে পত্রিকাটি।

মাদারীপুর সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ আবু নাঈম, ৯৯৯-এ ফোন পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে যায় পুলিশ। সেখানে শ্রমিকদের সরকারি গাছ কাটা বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়।

সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগের উপসহকারী প্রকৌশলী (এসও) আমিরুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা গাছ কাটার বিষয়টি নিয়ে তাদের একাধিক বার নিষেধ করেছি। এরপর সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরিও করেছি। আমরা তো ওদের সঙ্গে এখন মারামারি করতে পারব না। পুলিশের কাছে অভিযোগ জানিয়েছি। এখন যা করার পুলিশ করবে।’

এদিকে, মাদারীপুর সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ আবু নাঈম বলেন, গাছ কাটার বিষয়ে সওজের পক্ষ থেকে পুলিশকে কিছু জানানো হয়নি। অভিযোগ পেলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বলেন, আজ নতুন করে গাছ কাটার বিষয়ে তিনি কিছু জানেন না। এর আগে ক্লাবের পরিধি বাড়ানোর জন্য গাছ কাটার যে অভিযোগ করা হয়েছিল, সেটাও সত্য নয়। সওজের এই গাছটি নিজেদের দাবি করে স্থানীয় বিএনপির দুই মাঝারি সারির নেতার মধ্য দ্বন্দ্ব রয়েছে। বরং ওই সময় ক্লাবের এক জ্যেষ্ঠ সদস্যের হস্তক্ষেপে ওই গাছ কাটা বন্ধ হয়।
ছবি: প্রথম আলো

আপনার মন্তব্য

আলোচিত