শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৯ ইং

সিলেটটুডে ডেস্ক

০৩ নভেম্বর, ২০১৯ ১৫:১২

ধানমণ্ডিতে জোড়া খুনের ঘটনায় মামলা

রাজধানীর ধানমণ্ডির বাসায় এক বৃদ্ধা ও গৃহকর্মীকে গলা কেটে হত্যার ঘটনায় অজ্ঞাতপরিচয় এক নারীকে আসামি করে ধানমণ্ডি থানায় মামলা হয়েছে।

রোববার (৩ নভেম্বর) নিহত আফরোজা বেগমের (৬৫) মেয়ে অ্যাডভোকেট দিলরুবা সুলতানা রুবা বাদি হয়ে মামলা করেন।

মামলার তদন্ত সংশ্লিষ্ট পুলিশের এক কর্মকর্তা জানান, মামলায় ওই বাড়ির নিরাপত্তাকর্মী নুরুজ্জামান এবং দিলরুবার স্বামী গার্মেন্ট ব্যবসায়ী কাজী মনির উদ্দিন তারিমের কর্মচারী বাচ্চুকে সন্দেহের তালিকায় রাখা হয়েছে। তারা দুইজন এখন পুলিশ হেফাজতে রয়েছে।

ধানমণ্ডি থানার ওসি আব্দুল লতিফ বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, তারা এখনও অজ্ঞাতপরিচয় সেই নারীর সন্ধান পাননি। গোয়েন্দা পুলিশও এই হত্যাকাণ্ডের ছায়া তদন্ত করছে।

প্রসঙ্গত, ১ নভেম্বর শুক্রবার রাতে ধানমণ্ডির ২৮ নম্বর (নতুন ১৫) রোডের এক ভবনের পঞ্চম তলা থেকে টিমটেক্স গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী মনির উদ্দিনের শাশুড়ি আফরোজা ও গৃহকর্মী বিথীর (১৮) লাশ উদ্ধার করা হয়। দুজনকেই গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে।

ময়নাতদন্ত শেষে চিকিৎসকও বলেছেন, ধারালো অস্ত্রের আঘাতে তাদের হত্যা করা হয়।

পাঁচতলার ওই ফ্ল্যাটে আফরোজা বেগম ও গৃহকর্মী বিথী থাকতেন, উল্টো দিকের ফ্ল্যাট এবং তার ঠিক উপরে ছয়তলার ফ্ল্যাট নিয়ে ডুপ্লেক্সে বাসায় স্বামী-সন্তান নিয়ে থাকেন আফরোজার মেয়ে দিলরুবা।

দিলরুবার স্বামী মনির উদ্দিন বলেছিলেন, শুক্রবার ওই বাসায় নতুন এক গৃহকর্মী কাজে এসেছিল। নিরাপত্তাকর্মী বা কর্মচারীদের যোগসাজশে ওই ‘কাজের বুয়াই’ এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে বলে তার সন্দেহ।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত