শনিবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২০ ইং

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১৪ জানুয়ারি, ২০২০ ১১:৫৫

সৌদির ২১ সেনা সদস্যকে বহিষ্কার করেছে যুক্তরাষ্ট্র

সৌদি আরবের সামরিক বাহিনীর ২১ সদস্যকে (ক্যাডেট) যুক্তরাষ্ট্র থেকে বহিষ্কার করা হচ্ছে।

মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি)) বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়।

গত বছরের ডিসেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রের একটি নেভাল এয়ার স্টেশনে সৌদির এক সামরিক ক্যাডেট নির্বিচারে গুলি ছোড়েন। এই গুলিতে হতাহতের ঘটনার পর এখন সৌদির ২১ জন সামরিক ক্যাডেটকে বহিষ্কার করার পদক্ষেপ নিল যুক্তরাষ্ট্র।

গত বছরের ৬ ডিসেম্বর ফ্লোরিডায় অবস্থিত মার্কিন নেভাল এয়ার স্টেশনটিতে সৌদির সামরিক ক্যাডেটের গুলিতে যুক্তরাষ্ট্রের তিন সেনা নিহত হন। আহত হন অন্তত আটজন।

পরে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে নিহত হন হামলাকারী। তার নাম মোহাম্মদ আল-শামরানি (২১)। তিনি সৌদি রয়্যাল এয়ার ফোর্সের সেকেন্ড লেফটেন্যান্ট ছিলেন।

প্রশিক্ষণ কার্যক্রমে অংশ নিতে শামরানি ফ্লোরিডায় মার্কিন ঘাঁটিতে এসেছিলেন। ঘাঁটির একটি ক্লাসরুমে হামলা চালিয়েছিলেন তিনি।

হামলার পরিপ্রেক্ষিতে যুক্তরাষ্ট্রে সৌদির সামরিক প্রশিক্ষণ একেবারে বন্ধ করে দেওয়ার দাবি ওঠে। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে এই প্রশিক্ষণ স্থগিত করা হয়।

এখন সৌদির যে ২১ সামরিক ক্যাডেটকে যুক্তরাষ্ট্র থেকে বহিষ্কার করা হচ্ছে, তাদের বিরুদ্ধে হামলাকারীকে (শামরানি) সহায়তার অভিযোগ নেই।

তবে যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাটর্নি জেনারেল উইলিয়াম বার গতকাল সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, সৌদির যে সামরিক ক্যাডেটের যুক্তরাষ্ট্র থেকে বহিষ্কার করা হচ্ছে, তাদের জিহাদি সামগ্রী পাওয়া গেছে। এ ছাড়া তাদের কাছে শিশুদের অশালীন ছবি পাওয়া গেছে।

মার্কিন অ্যাটর্নি জেনারেলবলেন, মার্কিন নেভাল এয়ার স্টেশনে গুলির ঘটনাটি সন্ত্রাসী কাজ ছিল।

উইলিয়াম বার জানিয়েছেন, সৌদির হামলাকারীর দুটি আইফোন উদ্ধার করা হয়েছে। তদন্তের স্বার্থে এই আইফোনের লক খুলতে তারা অ্যাপলের সহায়তা চেয়েছেন।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত