Advertise

নিজস্ব প্রতিবেদক

২৬ মার্চ, ২০২০ ১৪:৩৮

রিকশা চালকদের চাল দিয়ে ঘরে থাকতে বলছেন হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক

সকাল ১০টা। হবিগঞ্জ শহরের প্রধান সড়কের কালীবাড়ি রোড এলাকায় সড়কে দাঁড়িয়ে আছেন হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামরুল হাসান, পৌর মেয়র মিজানুর রহমান মিজান ও পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্ল্যাহ। কোনো অভিযানে বের হননি তারা। সড়কে চলাচলরত রিকশা চালকদের চাল বিতরণ করছেন আর বলছেন ‘চাল নিয়ে আপনারা বাসায় থাকবেন। বাইরে আসবেন না।’

বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) সকাল ১০টা থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত এভাবেই প্রায় চার শতাধিক রিকশা চালকদের চাল বিতরণ করেন তারা।

জানা যায়, করোনা দুর্যোগ মোকাবেলায় হবিগঞ্জ জেলা চাল কল মালিক সমিতির পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসনকে ১৫০০ বস্তা চাল দেওয়া হয় নিম্ন আয়ের মানুষদের মধ্যে বিতরণের জন্য। সেই চাল শহরের বাণিজ্যিক এলাকা, সার্কিট হাউস এলাকা, চৌধুরী বাজার, শায়েস্তানগর পয়েন্টে বিতরণ করেন জেলা প্রশাসক, মেয়র, পুলিশ সুপার। এই ১৫০০ বস্তা চাল পর্যায়ক্রমে সকল নিন্ম আয়ের মানুষকে জেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে বিতরণ করা হবে।

এসময় প্রশাসনের পক্ষ থেকে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে বিভিন্ন সচেতনতামূলক পরামর্শ দেওয়া হয়।

এ ব্যাপারে জেলা চাল কল মালিক সমিতির কোষাধ্যক্ষ ফজলে রাব্বি রাসেল বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে সবচেয়ে কষ্টে আছেন দরিদ্র মানুষজন। তাই তাদের জন্য আমরা জেলা প্রশাসনকে ১৫০০ বস্তা চাল দিয়েছি। আজ হবিগঞ্জ শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে জেলা প্রশাসক, মেয়র, পুলিশ সুপার দাঁড়িয়ে রিকশা চালকদের এই চাল বিতরণ করেছেন। এই মুহূর্তে সবাইকে একটু মানবিক হতে হবে। দরিদ্র মানুষদেরকে যার যার সাধ্য অনুযায়ী সাহায্য করতে হবে।

হবিগঞ্জের পৌর মেয়র মিজানুর রহমান মিজান বলেন, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে নিয়ন্ত্রণে আনতে সকলকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হচ্ছে। কিন্তু জীবনের ঝুঁকি জেনেও জীবিকার তাগিদে রাস্তায় নেমেছেন রিকশা চালক ও দৈনিক শ্রমজীবী মানুষেরা। এইসব পরিশ্রমী মানুষদের জন্য সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিছেন জেলা চাল কল মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দ। তাদের দেওয়া ১৫০০ বস্তা চাল জেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে আজ বিতরণ করা হয়েছে। চাল দেওয়ার পাশাপাশি মানুষজনকে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে বিভিন্ন পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামরুল হাসান বলেন, করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সবাইকে ঘরে থাকতে হবে। তাই নিন্ম আয়ের মানুষদের জন্য জেলা চাল কল মালিক সমিতির পক্ষ থেকে দেওয়া ১৫০০ বস্তা চাল জেলা প্রশাসনকে দেওয়া হয়েছে। সেই চাল আজ বিতরণ করেছি। সাথে ছিলেন পৌর মেয়র ও পুলিশ সুপার। শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে দাঁড়িয়ে প্রায় ৪শত রিকশা চালককে ৫ কেজি চাল বিতরণ করা হচ্ছে। তাদের বলেছি চাল নিয়ে বাড়ি চলে যান। করোনাভাইরাস প্রতিরোধে ঘরে থাকার বিকল্প নেই। এছাড়াও আমাদের সরকারী উদ্যোগে চাল, ডাল, আলু বিতরণ করা হবে।

তিনি বলেন, এধরনের দুর্যোগের সময় সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি উদ্যোগেও মানুষজনকে সাহায্য করা প্রয়োজন। হবিগঞ্জের বিভিন্ন সংগঠনও জেলা প্রশাসনের কোষাগারে অর্থ দিচ্ছেন। সেই অর্থগুলো দিয়ে শিগ্রই চাল, ডাল, তেল কিনে দরিদ্রদের মধ্যে বিতরণ করা হবে। এই সংকট মুহূর্তে সকলকে এগিয়ে আসতে হবে।

 

আপনার মন্তব্য

আলোচিত