Advertise

সিলেটটুডে ডেস্ক

০৮ এপ্রিল, ২০২০ ০৩:১৩

বাইরে বেরুনোর শাস্তি পরীক্ষায় বসা

ছয় তরুণ রাস্তার পাশে বসে ‘করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি এবং প্রতিরোধে করণীয়’ শীর্ষক রচনা লিখছেন। লিখার পর সেটা পড়েও শোনাচ্ছেন। না, এটা কোন রুটিন-পরীক্ষা নয়। করোনাভাইরাসের সংক্রমণের সময়ে রাস্তায় বিনা কারণে বের হওয়ার শাস্তি। পরীক্ষা নিচ্ছেন পুলিশ সদস্য।

এমনটা ঘটনা ঘটল নাটোরের সিংড়া উপজেলায়। মঙ্গলবার বেলা ৩টার দিকে সিংড়া চলনবিল গেট এলাকায় ছয়জন তরুণ মোটরসাইলের পাশে দাঁড়িয়ে রচনা লিখছেন। যারা লিখতে পারছেন না, তারা বলে শোনাচ্ছেন। পরে তারা ক্ষমা চেয়ে ভবিষ্যতে আর জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হবেন না বলে অঙ্গীকার করলেন।

সিংড়া থানা সূত্রে জানা যায়, শত অনুরোধ সত্ত্বেও কিছু চালক জরুরি প্রয়োজন ছাড়াই মোটরসাইকেল নিয়ে সিংড়া শহরে ও চলনবিলের রাস্তায় ঘোরাঘুরি করছেন। এতে করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়ছে এবং সরকারের সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার কর্মসূচি বিঘ্নিত হচ্ছে। সড়ক পরিবহন আইন প্রয়োগ করেও চালকদের, বিশেষ করে তরুণ চালকদের মোটরসাইকেল চালানো বন্ধ করা যাচ্ছে না। তাই আইন অমান্যকারীরা আদৌ করোনাভাইরাসের সংক্রমণ সম্পর্কে কতটুকু জানেন এবং এ ব্যাপারে তাদের কী করণীয়, তা নিরূপণ করার প্রয়োজন দেখা দিয়েছে।

পুলিশের সিংড়া সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার জামিল আক্তার জানান, ‘মোটরসাইকেলচালকদের অধিকাংশই বয়সে তরুণ। তারা বিনা প্রয়োজনে বাইরে ঘোরাঘুরি করছেন। তাদের অর্থদণ্ড বা শারীরিক শাস্তি দিয়ে কষ্ট দিতে চাচ্ছি না। তাই এই ব্যতিক্রমধর্মী প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে। এর সুফল পাওয়া যাচ্ছে। গতকাল যারা এই প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছিলেন, তারা আজ বাইরে বের হননি।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত