রবিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯ ইং

সিলেটটুডে ডেস্ক

২৩ নভেম্বর, ২০১৯ ১০:২৩

ঢাকায় মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে আন্তর্জাতিক সম্মেলন শুরু

ছবি: সংগৃহীত

বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর ও বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে শুক্রবার বাংলা একাডেমিতে গণহত্যা-নির্যাতন ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক গবেষণা কেন্দ্রের উদ্যোগে তৃতীয় আন্তর্জাতিক সম্মেলন শুরু হয়েছে। সম্মেলনের আয়োজন করে ‘১৯৭১: গণহত্যা-নির্যাতন আর্কাইভ ও জাদুঘর ট্রাস্ট।’

সম্মেলনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়েল শিক্ষক অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন বলেছেন, ‘আমরা তাদের কথা যেন মনে রাখি, এ রাষ্ট্র গড়ে ওঠার পথে কত মানুষের কান্না, কত মানুষের জীবন দিতে হয়েছে। বহু পথ পেরিয়ে আমরা ঘাতকদের শাস্তির দাবিতে সোচ্চার হয়েছি। দক্ষিণ এশিয়ায় আমরা প্রথম মানবতাবিরোধী অপরাধীদের বিচার করতে পেরেছি। এটি এখনও চলছে। তবে একটি দুঃখ আছে, আমরা এখনও পাকিস্তানি বাহিনীর বিচার শুরু করতে পারিনি।’

তিনি আরও বলেন, ‘জিয়া-খালেদা-নিজামীর অপপ্রচারের জন্য সেই সব স্মৃতি বিনষ্ট হয়ে গেছে। শত সংকট ও লাঞ্ছনার পরও মানবতাবিরোধীদের বিচারকার্য সম্পন্ন হচ্ছে। কিন্তু দুঃখ হচ্ছে, পাকিস্তানিদের এখনও বিচার করা যায়নি। রোহিঙ্গা সমস্যার আন্তর্জাতিক সমাধান করতে হবে। না হয় বাংলাদেশ ও আশেপাশের দেশগুলো আক্রান্ত হবে জঙ্গিবাদ ও মৌলবাদের মাধ্যমে। একাত্তরের ঘাতক-খুনি পাকিস্তানিদের বিচার করতে আমরা পারবো।’ তিনি আরও বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু আমাদের স্বপ্ন দেখিয়েছেন বলেই আমরা বাংলাদেশ পেয়েছি।’

সম্মেলনে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক। এতে আরও বক্তব্য দেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ, শিল্পী হাশেম খান প্রমুখ।

সম্মেলনে ইতালি, কম্বোডিয়া, জাপান, তুরস্ক, মিয়ানমার, যুক্তরাজ্য ও ভারত থেকে ৩০ জন অধ্যাপক, গবেষক ও একাত্তরের সাথে সরাসরি সম্পৃক্ত সুহৃদগণ যোগ দিয়েছেন।

শনিবার (২৩ নভেম্বর) সম্মেলনের সমাপনী অধিবেশন এবং সম্মেলনের সহ-আয়োজক সংগঠন বাংলাদেশ ইতিহাস সম্মিলনী ৬ষ্ঠ বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।

শনিবারের সমাপনী অধিবেশন সকাল ১০টা থেকে শুরু হয়ে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত চলবে; এতে সভাপতিত্ব করছেন সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. মো. আবু হেনা মোস্তাফা কামাল এনডিসি। শুভেচ্ছা বক্তব্য দেবেন অধ্যাপক সঞ্জয় কে ভরদ্বাজ (ভারত), ড. খিন জ উইন (মিয়ানমার), ফেরহাত আতিক (তুরস্ক), জুলিয়ান ফ্রান্সিস (যুক্তরাজ্য), আন্না কোক্কিয়ারেল্লা (ইতালি), কুম সোমালি (কম্বোডিয়া) প্রমুখ। সমাপনী বক্তব্য দেবে ১৯৭১: গণহত্যা-নির্যাতন আর্কাইভ ও জাদুঘর ট্রাস্টের সভাপতি ড. মুনতাসির মামুন; এবং সবশেষে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করবেন আন্তর্জাতিক সম্মেলন আয়োজক কমিটির সদস্য সচিব ড. চৌধুরী শহীদ কাদের।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত