আজ বৃহস্পতিবার, , ২৬ এপ্রিল ২০১৮ ইং

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

১২ জানুয়ারী, ২০১৮ ২২:০৯

মুসলিম সাহিত্য পুরষ্কার পেলেন কবি নৃপেন্দ্রলাল দাশ

কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য পুরষ্কার পেলেন কবি নৃপেন্দ্রলাল দাশ। শুক্রবার (১২ জানুয়ারি) এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে কবি নৃপেন্দ্রলাল দাশের হাতে সম্মাননা স্বারক ও চেক প্রদান করেন অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান।

শুক্রবার (১২ জানুয়ারি) সন্ধ্যা ৬ টায় কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদ, সিলেটের কেমুসাস’র শহিদ সোলেমান হলে সাহিত্য সম্মেলন ২০১৮ অনুষ্ঠিত হয়।

এবারের সাহিত্য সম্মেলনটি বিশিষ্ট সাহিত্যিক, বহুভাষাবিদ, ভাষাসৈনিক সৈয়দ মুজতবা আলীর স্মৃতির উদ্দেশ্যে নিবেদিত করা হয়েছে। উক্ত সম্মেলনে সাহিত্যে অনন্য অবদানের জন্য কবি নৃপেন্দ্রলাল দাশকে কেমুসাস সাহিত্য পুরস্কার ২০১৭ প্রদান করা হয়েছে।

১৯৪৯ সালের ৬ নভেম্বর মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গলের ভূনবীর ইউনিয়নের গন্ধর্বপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন কবি নৃপেন্দ্রলাল দাশ। বাবা দেবেন্দ্রনাথ দাশ ও মায়ের নাম লাবণ্য দাশ।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে অনার্স সহ এম এ পাস করা নৃপেন্দ্রলাল দাশের এ পর্যন্ত ৮৮টি গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে। তার প্রথম কাব্যগ্রন্থ রম্যাণি-রুচিরা ১৯৭০ সালে প্রকাশিত হয়। তার লেখা উল্লেখযোগ্য কাব্যগ্রন্থগুলো হচ্ছে, অনীহার অন্ধকারে আমি (১৯৭২), বৈশালীর প্রতি সনেটগুচ্ছ (১৯৮২), দাঁড়াও দুঃখ (১৯৮৩), একফর্মা ইচ্ছাপত্র (১৯৯৮), আমার নিজস্ব তর্জা (২০০৬), এই নশ^রতা চাই (২০০৬), ফেসবুকে আমার রুবাইগুলি (২০১২), কবিতা সমগ্র-১ (২০১৩) ও বীরাঙ্গনা কথা (২০১৭)।

মূলত কবি হলেও সাহিত্যের প্রায় সব শাখায়ই রয়েছে তার অবাধ বিচরণ। গবেষণা এবং প্রবন্ধেও তিনি সিদ্ধহস্ত। তার উল্লেখযোগ্য গবেষণা ও প্রবন্ধগ্রন্থের মধ্যে রয়েছে- শ্রীভূমি সিলেটে রবীন্দ্রনাথ, সিলেটে নজরুল, বোবা বেহাগ, হাসনরাজা শব্দ নৈঃশব্দ্য, ভেঙে যাই তাবৎ ঘরানা, দেখা অদেখা, শ্রেষ্ঠ প্রবন্ধ ইত্যাদি। তার লেখা নিরীক্ষাধর্মী উপন্যাস গুলো হচ্ছে, গার্গী, হাসনরাজা : রঙের বারই ও হেমন্তবালার রবীন্দ্রনাথ। তার একমাত্র ভ্রমণ কাহিনী বরাকবঙ্গে প্রব্রজ্যা পাঠক মহলে বিপুল প্রশংসা লাভ করে।

শ্রীমঙ্গল সরকারি কলেজে ১৯৭৫ সালে প্রভাষক হিসেবে পেশাগত জীবন শুরু করেন এই সব্যসাচী লেখক। এরপর বিভিন্ন সময়ে দেশের বিভিন্ন সরকারি কলেজে অধ্যাপনা শেষে ঝিনাইদহের কেশবচন্দ্র কলেজ থেকে ২০০৬ সালে প্রফেসর হিসেবে অবসরে যান। সব্যসাচী এই লেখক পেয়েছেন আরও অনেক সম্মাননা ও পুরস্কার।

কেমুসাস সভাপতি প্রফেসর মো. আব্দুল আজিজ এর সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম, এ, মান্নান। এ বিষয়ে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন কবি কামাল তৈয়ব। সম্মেলনে কবি নৃপেন্দ্রলাল দাশের পরিচিতি উপস্থাপন করেন কবি সৈয়দ মবনু।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত