রবিবার, ২৫ আগস্ট ২০১৯ ইং

জৈন্তাপুর প্রতিনিধি

১০ আগস্ট, ২০১৯ ২২:৩০

হরিপুরে হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার হরিপুরে স্থানীয় বাসিন্দা সালেহ আহমদ আকরাম (৩২) নামে এক ব্যক্তির উপর হামলার প্রতিবাদে ও হামলাকারীদের দ্রুত গ্রেপ্তারের দাবিতে এক মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার (১০ আগস্ট) বিকেল চারটায় হরিপুর বাজারে হযরত শাহ আহমদ আলী (রহ.) সমবায় সমিতি বালিপাড়া ও এলাকার জন সাধারণের উপস্থিতিতে এ মানববন্ধনটি অনুষ্ঠিত হয়।

অনতিবিলম্বে এমন সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তার এবং সুষ্ঠু ন্যায় বিচারের স্বার্থে তাদের গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবি জানান মানববন্ধনে উপস্থিত বক্তাগণ। এতে বিপুল সংখ্যক মানুষের উপস্থিতি ছিল।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন- জৈন্তাপুর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান বশির উদ্দিন, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক আনোয়ার হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা মুহিবুর রহমান (মেম), হরিপুর বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আলা উদ্দিন, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, আমির উদ্দিন, মতিন মেম্বার, রকিব মেম্বার, হাজী আব্দুল হামিদ, ময়না মিয়া, ছাত্রদল নেতা জামিল আহমদ, গোলাম কিবরিয়া, সেলিম আহমদ,সয়ফুল আলম, লিটন , আব্দুর রহমান, আহমদ সৈকত (মনির) প্রমুখ।

প্রসঙ্গত, উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নের বালিপাড়া গ্রামে গত ৮ আগস্ট বৃহস্পতিবার রাত প্রায় ১ টার দিকে হরিপুর বাজার থেকে পশ্চিম বালিপাড়া গ্রামে নিজ বাড়িতে যাওয়ার সময় রাস্তায় সন্ত্রাসী হাজী মনাফ মিয়ার ছেলে নঈমুল্লা, বক্কর ও তার সহযোগীদের ধারালো দা’র কুপে গুরুতর আহত হন আব্দুর রহমান এর ছেলে সালেহ আহমদ আকরাম (৩২)।

জানা যায়, সালেহ আহমদ ও তার স্ত্রী শামিমা আক্তার (সাম্মা)’র মধ্যে পারিবারিক দ্বন্দ্ব ছিল। কিছুদিন আগে সালেহ আহমদের টাকা ও সোনা গহনা নিয়ে সাম্মা আসামী নঈমুল্লার বাড়িতে পালিয়ে যায়। এরই জের ধরে গত বৃহস্পতিবার রাতে বাজার থেকে বাড়িতে যাওয়ার সময় নঈমুল্লা গং সহ আসামীরা হত্যার উদ্দেশ্যে অতর্কিত হামলা চালায়। দা’র এলোপাথাড়ি কুপে সালেহ আহমদ চিৎকার করলে স্থানীয় এলাকার লোকজন এগিয়ে আসলে আসামীরা পালিয়ে যায়। সালেহ আহমদকে গুরুতর আহত অবস্থায় সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। বর্তমানে সে চিকিৎসাধীন  রয়েছে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত