বুধবার, ২২ মে ২০১৯ ইং

স্পোর্টস ডেস্ক

০৩ মে, ২০১৯ ১২:২৩

আরেকটি ট্রফি জয়ের দ্বারপ্রান্তে বাংলাদেশ

নিজেদের মাঠে প্রথম বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৯ আন্তর্জাতিক ফুটবলের আসর বলেই হয়তো বাংলাদেশ ট্রফি দেশেই রেখে দিতে চায়। সেই লক্ষ্যে শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে আজ (শুক্রবার) সন্ধ্যায় মাঠে নামছে স্বাগতিকরা লাওসের বিপক্ষে। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে সন্ধ্যা ৬টায় শুরু হবে ফাইনাল ম্যাচটি। যা সরাসরি দেখা যাবে বিটিভি, আরটিভি ও নাগরিক টিভিতে।

সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ ও ১৮ আসর ছাড়াও হংকংয়ে জকি কাপ প্রতিযোগিতার শিরোপার জেতার কীর্তি আছে বাংলাদেশের। এএফসির বিভিন্ন বয়সভিত্তিক আসরে সাফল্য তো আছেই। আজ (শুক্রবার) বাংলাদেশের মহিলা ফুটবলের ট্রফিকেসে আরেকটি সাফল্য যোগ হওয়ার সুযোগ।

দুই দলই নিজেদের শক্তিমত্তা দেখিয়ে ফাইনালে জায়গা করে নিয়েছে। তবে স্বাগতিকদের চেয়ে লাওস একদিক দিয়ে এগিয়ে আছে। আগের তিন ম্যাচে দলটি করেছে ১৮ গোল, হজম করেছে মোটে একটি। অন্যদিকে বাংলাদেশ প্রতিপক্ষের জালে বল জড়িয়েছে ৭বার, আর হজম করেছে ১ গোল।

মুহুর্মুহু আক্রমণ করে যেখানে লাওস একের পর এক গোল আদায় করে নিয়েছে, সেখানে বাংলাদেশকে পুড়তে হয়েছে হতাশায়। সানজিদা-তহুরারা জিতলেও গোল মিসের বন্যা বইয়ে দিয়েছেন সব ম্যাচেই।

লাওসের দুই ফুটবলার পি ও সেসামোনে ইন্থাফোনে আছেন দারুণ ফর্মে। প্রথমজন ৮ গোল করেছেন, দ্বিতীয়জনের কাছ থেকে এসেছে ৪ গোল। এই দুজনের দিকে তাই আলাদা দৃষ্টি রাখতে হচ্ছে। তবে বাংলাদেশের আক্রমণভাগও কম শক্তিশালী নয়। বড় ব্যবধানে জয় না পেলেও সানজিদা-কৃষ্ণা-মার্জিয়ারা প্রতিপক্ষের ডিফেন্ডারদের ভালোই পরীক্ষা নিচ্ছেন। আর মনিকা তো সেমিফাইনালে দুর্দান্ত ভলিতে গোল করে সবাইকে চমকেই দিয়েছেন।

ফাইনালের আগে তাই আত্মবিশ্বাসী বাংলাদেশ। অধিনায়ক মিশরাত জাহান মৌসুমী দৃঢ় কণ্ঠে বলেছেন, ‘ফাইনালে যেহেতু পৌঁছে গেছি, সেহেতু চাইব দেশের মাটিতেই ট্রফিটা রেখে দিতে। আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টগুলো নিয়মিত খেলছি। কখনও শক্ত ডিফেন্স, আবার কখনও শক্ত আক্রমণভাগের বিপক্ষে খেলতে হচ্ছে আমাদের। এটার সঙ্গে আমরা অভ্যস্ত। আমরা সেরাটা দিয়েই জিততে চাইব।’

২০২২ কাতার বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে শেষ ধাপে বাংলাদেশের পুরুষ ফুটবল দলের লড়াইয়েও লাওসই প্রতিপক্ষ। মৌসুমী মনে করছেন, আজ ফাইনাল জিততে পারলে জামাল-সুফিলরা অনুপ্রাণিত হবে। এই মিডফিল্ডারের কথায়, ‘যখন ক্রিকেট দল বিশ্বকাপ খেলে, সেটা আমাদের জন্য অনুপ্রেরণা। আমাদের দেশের ভাইয়েরাই তো বিশ্বকাপ খেলছে। তো একদিন তাদের দেখাদেখি আমরাও বিশ্বকাপ খেলব। ঠিক তেমনই আমরা যদি লাওসকে হারিয়ে দিতে পারি, তাহলে অবশ্যই ফুটবলের ভাইয়ারাও অনুপ্রাণিত হবেন এবং লাওসকে হারাতে পারবেন।’

লাওসের অধিনায়ক আফাতসালা চানথাভোংজে জানিয়েছেন, দল হিসেবে খেলতে চান ফাইনালে। তিনি বলেছেন, ‘আমরা শতভাগের বেশি দিতে চাই ফাইনালে। শিরোপা জিততে সব ধরনের চেষ্টাই আমরা করব। বাংলাদেশের রক্ষণভাগ ভালো। তবে কতটা ভালো, আগামীকাল (মঙ্গলবার) খেললেই পুরোপুরি বুঝতে পারব।’

আপনার মন্তব্য

আলোচিত