সোমবার, , ১০ ডিসেম্বর ২০১৮ ইং

সদরুল আমিন, ছাতক

০৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১২:৪১

সুনামগঞ্জ-৫: আ.লীগে ঐক্যের সুর, ধোঁয়াশা কাটছে না বিএনপির

ছাতক ও দোয়ারাবাজার উপজেলা নিয়ে গঠিত সংসদীয় আসন সুনামগঞ্জ-৫ নির্বাচনী এলাকায় একক প্রার্থীকে মনোনয়ন দিয়েছে আওয়ামী লীগ। এই আসনে বর্তমান সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি মুহিবুর রহমান মানিকের উপরই আস্থা রেখেছে আওয়ামী লীগ। তাকে ঘিরেই ঐক্যবদ্ধ হয়েছে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতারা।

অন্যদিকে এই আসনে একক পার্থী মনোনয়ন দিতে পারেনি বিএনপি। সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য কলিম উদ্দিন আহমদ মিলন এবং বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান চৌধুরীকে ছিলেন দলটির মনোনয়ন প্রত্যাশী। প্রাথমিকভাবে এই দুজনকেই দলীয় মহাসচিবের সাক্ষর সম্বলিত চিঠি দিয়েছে দলটি। এই দুই নেতাই দলীয় মনোনয়নের চিঠি পেয়ে মনোনয়নপত্র জমাও দিয়েছেন।

শেষ পর্যন্ত ধানের শীষ কার হাতে থাকবে তা নিতে স্থানীয় নেতাকর্মীদের পাশাপাশি সাধারণ ভোটারদের মধ্যে চলছে সরব আলোচনা। ফলে দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে এই আসনে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন বিএনপির নেতাকর্মীরা। কে হচ্ছেন বিএনপি’র চূড়ান্ত প্রার্থী! এ নিয়ে ধোঁয়াশা কাটছে না তাদের।

এদিকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাওয়ার পর মুহিবুর রহমান মানিককে ঘিরে ঐক্যবদ্ধভাবে নির্বাচনে প্রস্তুতি নিচ্ছে দলটি। এছাড়া আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনার কড়া হুশিয়ারির পর এবার এই আসনের আওয়ামীলীগের আরেক মনোনয়ন প্রত্যাশী শামীম আহমদ চৌধুরী নৌকার পক্ষে কাজ করার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

এ ব্যাপারে মিজানুর রহমান চৌধুরী বলেন, আমি ছাত্রদলের জেলা সভাপতি, কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি, সিলেট এমসি কলেজ ছাত্র সংসদের ভিপি ছিলাম। দলকে তৃনমূল পর্যায়ে শক্তিশালী করেছি। বিভিন্ন সময়ে নির্যাতিত হয়েছি, জেল খেটেছি, গুলিবিদ্ধ হয়েছি। মানুষ পরিবর্তন চায়, নতুনত্ব চায়, এলাকার মানুষের আশা-আখাঙ্গা পূরণে প্রার্থী হয়েছি। আমিই ধানের শীষ পাব এ ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী।

কলিম উদ্দিন আহমদ মিলন বলেন, এই নির্বাচনী এলাকার প্রতিটি নেতা-কর্মীর সঙ্গে আমার ব্যক্তিগত যোগাযোগ রয়েছে। গ্রামে গ্রামে দলকে সংগঠিত করেছি। এবারও আমিই এখানে দলের প্রার্থী হবো। মিজানুর রহমান চৌধুরীর মনোনয়ন পাওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, অনেক জায়গাতেই বিকল্প প্রার্থী রাখা হয়েছে।

মুহিবুর রহমান মানিক বলেন, মানুষের ভালোবাসাই আমার শক্তি। আমি সাতবার আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাওয়ার সুবাদে তৃনমূল আওয়ামীলীগের সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা এখনো অকুন্ঠ সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে। আমি জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে তাঁর নেতৃত্বাধীন সংসদের একজন সদস্য হিসেবে এলাকার কাঙ্ক্ষিত উন্নয়ন করে তাঁর জনপ্রিয়তা ও নেতৃত্বকে তৃনমূলে তুলে ধরেছি। একাদশ জাতীয় নির্বাচনেও নেত্রী আমাকে মনোনয়ন দিয়ে কৃতার্থ করেছেন আশা করি জনগণের ভালোবাসায় এবারও ভোট বিপ্লব হবে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত