সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯ ইং

নিজস্ব প্রতিবেদক

১২ অক্টোবর, ২০১৮ ১৫:৩৯

নগরে বৃষ্টিস্নাত শরৎ উৎসব

ঋতুবৈচিত্র্যের দেশে শরতের আগমনী বার্তা ইট-পাথরের নগরে বোঝার উপায় নেই। আর বোঝা গেলেও নগরজীবনের ব্যস্ততায় উৎসব আয়োজন করা হয়ে ওঠে না। তবুও কিছু আয়োজন নগরবাসীকে এখনও জানান দিয়ে যায়- ঋতুচক্রের আবর্তে প্রকৃতিতে এসেছে বর্ষা, বসন্ত কিংবা শীত। তেমনি একটি আয়োজন 'শরৎ উৎসব।'

শুক্রবার সিলেট  কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে শ্রুতি সিলেট আয়োজিত দিনব্যাপী শরৎ উৎসব নগরবাসীর মনে এনে দেয় অপার প্রশান্তি। দিনভর বৃষ্টিকে উপেক্ষা করে নীল-সাদা শাড়ি, খোঁপায়-হাতে ফুলের সাজ আর নাচে-গানে চলে শরৎবন্দনা।

শ্রুতি সিলেটের আয়োজনে শরৎ উৎসবের মূল আয়োজনে পরিবেশন করা হয় গান-কবিতা-নৃত্য। ছিল 'শরৎ কথন' পর্ব। এতে ঋতুবৈচিত্র্যের দেশ বাংলাদেশের প্রকৃতির সুরক্ষায় সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানানো হয়। মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্জ্বলন আর মঙ্গল ঢাক'র মাধ্যেমে অনুষ্ঠানের শুরু হয়। মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্জ্বলন করেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব এবং মুক্তিযোদ্ধা ভবতোষ বর্মণ রানা।

শ্রুতি সিলেটের সদস্যসচিব সুকান্ত গুপ্ত'র পাশাপাশি শরৎ কথন পর্বে অংশ নেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ব্যারিস্টার মোহাম্মদ আরশ আলী, আবৃত্তিশিল্পী ফয়সাল মাহমুদ, জেলা সংস্কৃতি বিষয়ক কর্মকর্তা অসিত দাশ গুপ্ত, শ্রুতি সমন্বয়ক সুমন্ত গুপ্ত প্রমুখ।

শ্রুতির দিনব্যাপী শরত উৎসবে  চলতে থাকে  সম্মেলক পরিবেশনা,আবৃত্তি, নৃত্য,সংগীত, রং তুলিতে শরত,কবি কন্ঠে শরত সহ বিভিন্ন আয়োজনের। সমবেত সংগীত- নৃত্য- আবৃত্তি পরিবেশন করে জাতীয় রবীন্দ্র সংগীত সম্মিলন পরিষদ, আনন্দলোক, নৃত্যশৈলী, রবীন্দ্র সংগীতশিল্পী সংস্থা, ছন্দনৃত্যালয়, দ্বৈতস্বর,সুরের ভূবন, মুক্তাক্ষর, থিয়েটার একদল ফিনিক্স। একক সংগীত ও আবৃত্তি পরিবেশন করেন শামীম আহমেদ, প্রদীপ মল্লিক, ইকবাল সাই, নন্দিতা দত্ত, লিংকন দাশ, সোনিয়া রায়, শ্রাবনী দত্ত এনি প্রমুখ। কবি কন্ঠে শরত আয়োজনে অংশ নেন কবি এ কে মোহাম্মদ হুসাইন, শামসুল আলম সেলিম, কাসমির রেজা। আমন্ত্রিত অতিথি শিল্পী হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদের সিলেট অঞ্চলের সংগঠনিক সম্পাদক মোঃ মনির হোসেন এবং বাছির দুলাল। রংতুলিতে শরত ভাবনায় অংশ নেন তরুন চিত্রশিল্পীরা।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত