বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯ ইং

নিজস্ব প্রতিবেদক

১১ জানুয়ারী, ২০১৯ ০০:৪৪

তোতার পাপেট শোতে মুগ্ধ দর্শক

‘বন্ধুরা তোমরা কেমন আছো। আমার সাথে অনেকগুলো বন্ধু আছে, তাদের সাথে একটু পরে আমি দেখা করিয়ে দেব।’ শো এর শুরুতেই ঠিক তোতা পাখির মতই বলতে শুরু করে তোতা। তার কথায় ঝটপট সাড়া দিচ্ছিলেন হলে উপস্থিত সকল দর্শকরা। বলছিলাম মাত্র ৮ বছর বয়সের পাপেট শিল্পী তোতার কথা।

বৃহস্পতিবার পাপেট নিয়ে প্রথমবারের সামনে দর্শকদের সামনে হাজির হয় তোতা।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় সম্মিলিত নাট্য পরিষদ, সিলেটের মহড়াকক্ষে প্রদর্শন করা হয় আবোল তাবোল পাপেট থিয়েটারের পরিবেশনা ‘কানা বগির ছাঁ’। এই পাপেট শো এর আয়োজন করে দর্পণ থিয়েটার।

পাপেট শো এর শুরুতে পরিচিত হতে আসে ‘আলতাল’ নামের একটি চরিত্র। সে এসেই বলে, ‘আমার সাথে মাতবায়নি।’ কথা আর অঙ্গভঙ্গির যাদুতে মুহূর্তের মধ্যেই উপস্থিত দর্শদের আকৃষ্ট করে আলাতাল। এরপর পর্যায়ক্রমে আসে গানওয়ালা আর আজব যাদুকর। যাদুকরের দাঁড়ির যাদুতে হাসির রোল পড়ে হল রুমে। যাদুকরের যাদুর মোহ থেকে বের হতেই চলে আসে কাঠুরে। প্রতিটি চরিত্রের আঁড়ালে থেকে প্রাণবন্তভাবে দর্শকদের সাথে কথা বলছিল তোতা। তোতার এই বন্ধুদের সঙ্গে পরিচিত হওয়ার পরই শুরু হয় ‘কানা বগির ছাঁ’ এর পরিবেশনা।
নাচতে নাচতে স্টেজের এক প্রান্ত দিয়ে প্রবেশ করে বক। আর অপরপ্রান্ত দিয়ে প্রবেশ করে কতগুলো পুঁটি মাছ। বিভিন্ন নাটকিয়তায় দর্শকদের মাতিয়ে শেষ হয় তোতার ‘কানা বগির ছাঁ’। শো শেষে সকল দর্শকদের কাগজ দিয়ে ময়ুর পাপেট তৈরা শেখায় তোতা।

তোতার বাবাও স্বনামে পরিচিত। জনপ্রিয় গানের দল জলের গানের সদস্য রাহুল আনন্দের ছেলে তোতা। সে ঢাকার নালন্দা বিদ্যালয়ের ৩য় শ্রেণীর ছাত্র। ছেলের এই প্রথম পরিবেশনায় রাহুল আনন্দের চোখে মুখে ছিল খুশির ছটা। তিনি বলেন, ‘আমার ভূমিতে আমার জায়গাতে আমার সন্তান একটা কাজ শুরু করেছে। তাই আজ আমি অনেক গর্বিত। ও সহজাত ভাবে এই কাজটা করে।’ তিনি বলেন, ‘মঞ্চে যখন থেকে পারফম করি তখন থেকে কখনো ব্যাক স্টেইজে কাজ করিনি। সব সময় মঞ্চের সামনে কাজ করছি। আজ প্রথম ব্যাক স্টেইজে কাজ করছি আমি। ছেলের জন্য ব্যাগ্রাউন্ড আর্টিস্ট হয়েও গর্ব বোদ করছি।’

এই পাপেট শোতে তোতার সহযোগী শিল্পী ছিল দর্পন থিয়েটারের ক্ষুদে সদস্য জয়িতা জেহান প্রিয়তী ও মহাশ্বেতা দেব পুরকায়স্থ।

তোতার এই পাপেট শো শুক্রবার সকাল ১০ টায় পাঠশালার আয়োজনে কাজীটুলাস্থ বেসিক বেইজ স্কুল প্রাঙ্গণে এবং বিকাল ৪ টায় বাংলাদেশ শিশু একাডেমি, সিলেটের উদ্যোগে রিকাবিবাজারস্থ তাদের মহড়াকক্ষে প্রদর্শিত হবে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত