শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯ ইং

সিলেটটুডে ডেস্ক

২১ মার্চ, ২০১৯ ২২:০২

সিলেট শিল্পকলা একাডেমির শিক্ষণ কর্মশালার সমাপ্তি

জেলা শিল্পকলা একাডেমির উদ্যোগে ২৫টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অংশগ্রহণে সিলেটে ৩ দিনব্যাপী জাতীয় সংগীত ও বাংলা সংগীত-সংস্কৃতি শিক্ষণ কর্মশালা আজ বৃহস্পতিবার (২১ মার্চ) শেষ হয়েছে।

কর্মশালার সমাপনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জেলা কালচারাল অফিসার অসিত বরণ দাশ গুপ্ত। কর্মশালার প্রশিক্ষকদের পক্ষ থেকে বক্তব্য দেন প্রতীক এন্দ। কর্মশালায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের পক্ষ থেকে বক্তব্য দেন, রসময় মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষিকা তাহমিনা পারভিন ও জালালাবাদ ক্যান্টনম্যান্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষিকা মারিয়া খাতুন মুন্নী।

আবৃত্তিশিল্পী আবু বকর মো. আল আমিনের উপস্থাপনায় কর্মশালায় অংশগ্রহণকারী প্রশিক্ষণার্থীদের পক্ষ থেকে বক্তব্য দেন, এমসি কলেজের শিক্ষার্থী শাহরিয়ার ও রসময় মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী অন্তরিকা পাল।

আলোচনা পর্ব শেষে কর্মশালায় অংশগ্রহণকারী প্রত্যেকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দলনেতার হাতে সনদপত্র তুলে দেয়া হয়। এ পর্বে উপস্থিত ছিলেন পরিবেশ অধিদপ্তর সিলেটের উপপরিচালক মো. আলতাফ হোসেন।

এরপর কর্মশালায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীরা কর্মশালাভিত্তিক প্রযোজনা উপস্থাপন করেন। ৩ দিনব্যাপী এই কর্মশালায় শিক্ষার্থীদের শুদ্ধ সুরে ‘জাতীয় সংগীত’ এবং ১টি রবীন্দ্রসংগীত ‘আনন্দলোকে মঙ্গলালোকে’, ১টি নজরুল সংগীত ‘দাও শৌর্য, দাও ধৈর্য’, ১টি মুক্তিযুদ্ধের গান ‘পূর্ব দিগন্তে সূর্য উঠেছে’, ১টি লালনগীতি ‘সত্য বল সুপথে চল’, ১টি ভাষার গান ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি’ ও ১টি দেশের গান ‘ধন ধান্য পুষ্প ভরা’ প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়।

কর্মশালায় প্রশিক্ষকের দায়িত্ব পালন করেন পূর্ণিমা দত্ত রায় ও প্রতীক এন্দ। কর্মশালার সমাপনী অনুষ্ঠানের আনুষ্ঠানিকতা শেষে জেলা শিল্পকলা একাডেমির প্রশিক্ষণার্থী ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের একক ও দলীয় সংগীত, নৃত্য, অভিনয় ও আবৃত্তির সমন্বয়ে একটি মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত