Advertise

সিলেটটুডে ডেস্ক

২২ মে, ২০২০ ১৪:১৯

আম্পানের ক্ষয়ক্ষতি দেখতে পশ্চিমবঙ্গে মোদি

ঘূর্ণিঝড় আম্পানের তাণ্ডবে বিধ্বস্ত পশ্চিমবঙ্গ পরিদর্শনে এসেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। শুক্রবার সকালে কলকাতা বিমানবন্দরে পৌঁছালে তাকে অভ্যর্থনা জানান রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, তাকে বিমাবন্দরে অভ্যর্থনা জানাতে আরও উপস্থিত ছিলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়ও। সেখানে কিছু আলাপচারিতার পর তারা বসিরহাটের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আগেই জানান, ঘণ্টাখানেক আকাশপথে ঘুরে পশ্চিমবঙ্গের পরিস্থিতি দেখবেন তারা। ইতোমধ্যে একটি রুট তৈরি করা হয়েছে। হিঙ্গলগঞ্জ, ডায়মন্ড হারবার, কুলতলিসহ একাধিক জায়গা পরিদর্শন করবেন তারা।

আম্পানের তাণ্ডবে পশ্চিমবঙ্গের অবস্থা দেখে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। শুক্রবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ফোন করেন তিনি। এছাড়া মমতাকে ফোন করেছেন ওডিশার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়ক। তার রাজ্যেও আম্ফানের প্রভাব পড়েছে।

ঘূর্ণিঝড় আম্পানে ক্ষয়ক্ষতির ব্যাপারে খোঁজ-খবর ও সহমর্মিতা জানাতে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে টেলিফোন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ সকালে তাদের কথা হয়।

পশ্চিমবঙ্গে আম্পানের ক্ষয়ক্ষতি জানতে মুখ্যমন্ত্রীকে ফোন করেছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। তাকে ফোনে যত দ্রুত সম্ভব আর্থিক সাহায্য করার আবেদন জানান মুখ্যমন্ত্রী মমতা। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে তিনি বলেন, ৫০০ দিন পরে পেলে লাভ নেই। টাকা এখনই দরকার। করোনাভাইরাসের দাপট এখনও সামলে উঠতে পারেনি পশ্চিমবঙ্গ। তার উপর আম্পানের তাণ্ডবে বিধ্বস্ত গোটা রাজ্য।

পশ্চিমবঙ্গে এখন পর্যন্ত অন্তত ৮০ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। শুধু কলকাতাতেই মৃত্যু হয়েছে ১৯ জনের। এছাড়া ঘরবাড়ি, গাছপালা ভাঙাসহ বড় ধরনের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

গত বুধবার ঘূর্ণিঝড় আম্পানের তাণ্ডবে তছনছ হয়ে যায় উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা, কলকাতা, পূর্ব মেদিনীপুর, হাওড়া, হুগলিসহ দক্ষিণবঙ্গের বেশ কয়েকটি জেলা। বৃহস্পতিবার সকাল হতেই মুখ্যমন্ত্রী মমতাকে ফোন করে ক্ষয়ক্ষতির খোঁজ-খবর নিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত