শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ইং

সিলেটটুডে ডেস্ক

১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৩:৪০

মোবাইল থেকে যে অ্যাপগুলো এখনই সরিয়ে ফেলা উচিত আপনার

সম্প্রতি একটি ম্যালওয়্যার বা ক্ষতিকর প্রোগ্রাম গুগল প্লে স্টোরে থাকা কয়েকটি অ্যাপে ছড়িয়েছে। এসব অ্যাপ আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনে ইনস্টল করা থাকলে তা ব্যক্তিগত তথ্য চুরি ছাড়াও অজান্তে মোবাইলের টাকা শেষ করে করে ফেলতে পারে।

সাইবার নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠান সিএসআইএসের গবেষকেরা এ ধরনের ২৪টি অ্যাপের কথা বলেছেন। তারা পরীক্ষা করে গুগল প্লে স্টোরে থাকা এসব অ্যাপে ‘জোকার’ নামের একটি ক্ষতিকর ম্যালওয়্যারের সন্ধান পেয়েছেন। ইতিমধ্যে এ ম্যালওয়্যারটি প্রায় পাঁচ লাখ ডিভাইসে ছড়িয়েছে।

গবেষকেরা বলেন, জোকার নীরবে বিভিন্ন বিজ্ঞাপনভর্তি ওয়েবসাইটের সঙ্গে যোগাযোগ করে এবং মোবাইল থেকে এসএমএস, কনটাক্ট লিস্ট ও ডিভাইসের নানা তথ্য হাতিয়ে নেয়।

গত জুন মাসে প্রথম খোঁজ পাওয়া যায় জোকার নামের এ ম্যালওয়্যারটির। যখন এটি কারও স্মার্টফোন বা অন্য ডিভাইসে আক্রমণ করে, তখন এটি এসএমএসের অ্যাকসেস নিতে পারে। এ ম্যালওয়্যার ছড়ানো দুর্বৃত্তরা জোকার ব্যবহার করে স্মার্টফোনের কন্টাক্ট লিস্ট ও ডিভাইসের সব তথ্য হাতিয়ে নিতে পারে। এতে ব্যবহারকারীর প্রাইভেসি বা ব্যক্তিগত গোপন বিষয়গুলো হুমকির মুখে পড়ে যায়।

প্রাইভেসি নিয়ে দুশ্চিন্তা বাড়ানোর পাশাপাশি জোকার অনেকটাই গোপনে কোনো অ্যাপের সাবসক্রিপশন চালু করে দেয় বা কোনো ওয়েবসাইটের প্রিমিয়াম সেবা বা অ্যাপ কেনাকাটা করতে পারে।

সফটওয়্যার ডেভেলপার অ্যালেক্সেজ কুপারনিস মিডিয়ামে লেখা এক ব্লগ পোস্টে জোকার ম্যালওয়্যারটি বিশ্লেষণ করেছেন। জোকার ম্যালওয়্যারটি বিশ্বের ৩৭টি দেশে আক্রান্ত অ্যাপের মাধ্যমে ছড়িয়েছে। এশিয়ার বিভিন্ন দেশের পাশাপাশি ইউরোপীয় ইউনিয়নের কয়েকটি দেশে জোকার ম্যালওয়্যার আক্রান্ত ডিভাইস রয়েছে।

অ্যাপ্লিকেশনগুলো হলো- বিচ ক্যামেরা ৪.২; মিনি ক্যামেরা ১.০.২; সার্টেন ওয়ালপেপার ১.০২; রেডওয়ার্ড ক্লিন ১.১.৬; এজ ফেস ১.১.২; অল্টার মেসেজ ১.৫; সবি ক্যামেরা ১.০.১; ডিক্লেয়ার মেসেজ ১০.০২; ডিসপ্লে ক্যামেরা ১.০২; র‍্যাপিড ফেস স্ক্যানার ১০.০২; লিফ ফেস স্ক্যানার ১.০.৩; ব্রড পিকচার এডিটিং ১.১.২; কিউট ক্যামেরা ১.০৪; ড্যাজল ওয়ালপেপার ১.০. ১১; স্পার্ক ওয়ালপেপার ১.১. ১১; ক্লাইমেট এসএমএস ৩.৫; গ্রেট ভিপিএন ২.০১; হিউমার ক্যামেরা ১.১.৫; প্রিন্ট প্ল্যান স্ক্যান ১.০৩; অ্যাডভোকেট ওয়ালপেপার ১.১.৯; রুডি এসএমএস মড ১.১; ইগনাইট ক্লিন ৭.৩; অ্যান্টিভাইরাস সিকিউরিটি-সিকিউরিটি স্ক্যান, অ্যাপ লক ১.১.২; এবং কোলাট ফেস স্ক্যানার ১.১.২।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত