COVID-19
CORONAVIRUS
OUTBREAK

Bangladesh

Worldwide

56

Confirmed Cases,
Bangladesh

06

Deaths in
Bangladesh

25

Total
Recovered

936,829

Worldwide
Cases

47,263

Deaths
Worldwide

194,604

Total
Recovered

Source : IEDCR

Source : worldometers.info

শাবি প্রতিনিধি

১৫ মার্চ, ২০২০ ১৯:০৬

ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করলো শাবি সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীরা

ফলাফল পুর্নমূল্যায়নসহ তিন দফা দাবিতে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করেছেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (শাবি) সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

রোববার (১৫ মার্চ) বিকালে বিভাগীয় প্রধান বরাবর স্মারকলিপি প্রদানের মাধ্যমে এ দাবি জানান শিক্ষার্থীরা।

দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে- সমাজবিজ্ঞান বিভাগের সার্বিক ফলাফল কেন বিপর্যয় ঘটে বিষয়টি তদন্ত করা, সাম্প্রতিক সময়ে প্রকাশিত বিভিন্ন সেমিস্টারের ( ৪/২, ৩/২, ২/২, ১/২) প্রকাশিত ফলাফল পুর্নমূল্যায়ন ও নতুন রূপে ফলাফল প্রকাশ করা, দীর্ঘদিন ধরে অকার্যকর সমাজবিজ্ঞান সমিতি কার্যকর করা।

স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়- সমাজবিজ্ঞান বিভাগের প্রকাশিত ফলাফল খুবই হতাশাজনক ও অনাকাঙ্ক্ষিত। এই সেমিস্টার ছাড়াও বিভাগের সকল ব্যাচের সিজিপিএ সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের অন্যান্য বিভাগের তুলনায় কম। এমনকি দেশের অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ফলাফলের তুলনায় নগণ্য। এতে এই বিভাগের শিক্ষার্থীরা চাকরির ক্ষেত্রসমূহে যথাযথ মূল্যায়ন না পাওয়ার আশঙ্কা করছে।

স্মারকলিপিতে আরো উল্লেখ করা হয়- পাঠ্য-বহির্ভূত কার্যক্রমে বিভাগের পর্যাপ্ত সহযোগিতা পাওয়া যায় না। এই পাঠ্য-বহির্ভূত কাজের বিভিন্ন উদ্যোগী পদক্ষেপের জন্য যে সমাজবিজ্ঞান সমিতি, তা অকার্যকররুপে আছে।

সরেজমিনে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, চতুর্থ বর্ষ দ্বিতীয় সেমিস্টারে ৫৫ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে 'বি প্লাস' ৯ জন, 'বি' ৩৫ জন, 'বি মাইনাস' ৯ জন, 'সি প্লাস' ২ জন পেয়েছেন। তৃতীয় বর্ষ দ্বিতীয় সেমিস্টারে ৫২ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে 'এ মাইনাস' ১ জন, 'বি' প্লাস ১০ জন, 'বি' ২৮ জন, 'বি মাইনাস' ৮জন, 'সি প্লাস' ৪ জন এবং 'সি' ১ জন এবং দ্বিতীয় বর্ষ দ্বিতীয় সেমিস্টারে মোট ৬৬জন শিক্ষার্থীর মধ্যে 'বি প্লাস' ৪ জন, 'বি' ২৪ জন, 'বি মাইনাস' ২৩ জন, 'সি প্লাস' ১২ জন এবং 'সি' ৩ জন পেয়েছেন। এতে কোন শিক্ষার্থী 'এ' কিংবা 'এ প্লাস' পাননি।

ফলাফলের বিষয়ে বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মো. তানভীর রহমান বলেন, প্রায় সব ব্যাচেই অধিকাংশের রেজাল্ট খারাপ হওয়ার কারণে আমাদের অনেকর উচ্চ শিক্ষায় এবং গবেষণায় বিরূপ প্রভাব পড়ছে। কেন বার বার ফলাফলের এমন অধঃপতন ঘটছে তা খুঁজে বের করার লক্ষ্যেই আমরা এই দাবিগুলো জানাচ্ছি।

এ বিষয়ে বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ড. লায়লা আশরাফুল বলেন, আমি বিভাগের শিক্ষকদের নিয়ে মিটিং ডেকেছি। বিভাগের শিক্ষকরা আলোচনা করে যে সিদ্ধান্ত নিবে তাই হবে। এতে আমি এককভাবে কোন সিদ্ধান্ত নিতে পারি না।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত