বইমেলার ডায়েরি-১

 প্রকাশিত: ২০২০-০২-০৩ ০২:৩৮:৩৪

 আপডেট: ২০২০-০২-০৩ ০৩:৩৫:৩৬

রেজা ঘটক:

প্রতীক্ষার প্রহর শেষে আজ ২ ফেব্রুয়ারি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০২০-এর শুভ উদ্বোধন করেন। বিকাল সাড়ে পাঁচটা নাগাদ বইমেলা প্রাঙ্গণ সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ও বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণ কবি-লেখক-প্রকাশক-বইপ্রেমীদের মিলনমেলায় পরিণত হয়।

আমি আর কাজী ফয়সল বইমেলায় প্রবেশ করি বিকাল সাড়ে চারটায়। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ঢুকে দেখলাম দু-একজন প্রকাশক স্টল খুলেছেন। বাকিরা প্রধানমন্ত্রী চলে যাবার পর মেলায় ঢুকেছেন। ঘণ্টাখানেক পরেই বইমেলা প্রাঙ্গণ প্রাণের মিলনমেলায় পরিণত হয়।

আজ লেখক বলছি মঞ্চে কথাশিল্পী স্বকৃত নোমানের উপস্থাপনায় চলচ্চিত্র ও বই নিয়ে কথা বলেছি আমি এবং চলচ্চিত্র সমালোচক বিধান রিবেরু। লেখক বলছি মঞ্চের শুভ উদ্বোধন করেন বাংলা একাডেমি'র পরিচালক কবি সরকার আমিন। অনেক কবি-সাহিত্যিকের উপস্থিতিতে প্রথম দিনেই লেখক বলছি মঞ্চ বেশ জমে ওঠে।

সন্ধ্যায় শর্ট সার্কিট থেকে রাবেয়া বুকসের স্টলে আগুন লাগে। যদিও মেলাপ্রাঙ্গণে স্থাপিত দমকলবাহিনী খুব দ্রুত সেই আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। দুর্বল তার দিয়ে ইলেক্ট্রিসিটি সংযোগ নেওয়ার কারণে এমন দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে নিশ্চিত করেছেন বইমেলার সদস্য সচিব জালাল আহমেদ। বইমেলায় সংশ্লিষ্ট সবাইকে এব্যাপারে সতর্ক থাকার জন্য অনুরোধ করছি।

উদ্যানে প্রচুর বালি থাকায় বইপ্রেমীদের হাঁটতে একটু কষ্ট হয়েছে। কিন্তু স্বাধীনতা টাওয়ারকে ঘিরে গোটা লেকের পাড় এবার বইমেলার মধ্যে থাকায় বসার জন্য কংক্রিটের বেঞ্চের পাশাপাশি বাঁশ দিয়ে তৈরি বেঞ্চে সবাই বসে রেস্ট নিতে পেরেছেন। লিটলম্যাগ কর্নার প্রথম দিনেই হালকা আড্ডায় ছিল সরগরম। লিটলম্যাগ সম্পাদকগণ নালিশ দিলেন এখনো তারা স্টলে বসার জন্য চেয়ার পাননি। আশা করি বাংলা একাডেমি আগামীকাল থেকে লিটলম্যাগ কর্নারে চেয়ারের ব্যবস্থা করবেন।